জামায়াত আমীরের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানালো এবি পার্টি

|

এবি পার্টি নিয়ে জামায়াত আমীরের বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়েছে দলটি। দলের পক্ষে এবিএম খালিদ হাসান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, জামায়াতের আমীর শফিকুর রহমান এবি পার্টির লোকদের ‘আল্লাহ যেন দ্বীনের পথে আবার পরিপূর্ণ ভাবে ফিরিয়ে আনেন’ এই দোয়া করে আহ্বান জানান। এতে মনে হয়েছে যে তিনি এবি পার্টির লোকদের দ্বীন থেকে বিচ্যুত এবং খণ্ডিত মুসলমান মনে করেন। একজন মুসলমান অন্য মুসলমানের জন্য দোয়া করবেন এটা ধর্মীয় রীতি ও পুণ্যের কাজ। কিন্তু একটি দলের প্রধান অন্য একটি রাজনৈতিক দল সম্পর্কে ‘দোয়া’ করার নাম করে এরকম অশোভন ইংগিতপূর্ণ মন্তব্য বাংলাদেশে বিরল। আমরা তার মত সম্মানিত ব্যক্তির কাছ থেকে এ ধরনের বিভেদ ও অপ-রাজনীতিমূলক আচরণে ব্যথিত। এরকম রাজনৈতিক চর্চা চালু হলে প্রত্যেক দলই একে অপর দলের জন্য হেদায়েতের পথে আসার, পরিপূর্ণ মুসলমান হবার জন্য দোয়া করতে থাকবে। যা এক ধরনের অসুস্থ সংস্কৃতির জন্ম দেবে এবং মূলত: ধর্মেরই অবমাননা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, জামায়াত আমীর বলেছেন- মে মাসের ২ তারিখে এবি পার্টি গঠন-কালীন তারা তাদের দলীয় মেনিফেস্টো ঘোষণার সময় বলেছেন-এবি পার্টির নীতি ও কর্মকৌশল হবে তিনটা জিনিষের ওপর ভিত্তি করে সাম্য, সামাজিক সুবিচার ও মানবাধিকার। এটার উপরে তারা কাজ করবেন। তারা তাদের সেশনে পরিষ্কার করে বলেছে যে, তাদের কর্মসূচিতে তাদের এজেন্ডায় ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধের এই চ্যাপ্টার থাকবেনা। এটাকে বাদ দিয়েই হবে তাদের সবকিছু। শফিকুর রহমানের এই বক্তব্যে প্রদত্ত তথ্য ভুল, বিভ্রান্তিকর ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে এবি পার্টি জানায়, এবি পার্টি ২ মে দলের যে ৭ দফা কর্মসূচি ঘোষণা করেছে তার প্রথম দফা হলো ‘জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা’। যেখানে বলা হয়েছে ‘বাংলাদেশের নাগরিকদের মধ্যকার বিভেদ ও বিভাজন সৃষ্টিকারী সকল মত ও পথ পরিহার করে স্বাধীনতার ঘোষণাপত্রে উল্লেখিত সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচার এই তিন মূলনীতির ভিত্তিতে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করা।

তারা জানায়, জামায়াত আমীর একটি দফাকে সম্ভবত: ভুলবশত পুরো দলের মূলনীতি ও কর্মকৌশল হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তাছাড়া এই তিন মূলনীতি মূলত: মহান মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীন বাংলাদেশ গঠনের প্রতিশ্রুত মূলনীতি। যেখানে ‘মানবিক মর্যাদা’র বিষয়টিকে তিনি অসাবধানতা-বশত: ‘মানবাধিকার’ বলে উল্লেখ করেছেন।

এবি পার্টি বলে, জামায়াত আমীরের বক্তব্য ‘এবি পার্টির কর্মসূচিতে ও এজেন্ডায় ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধের এই চ্যাপ্টার থাকবেনা। এটাকে বাদ দিয়েই হবে তাদের সবকিছু।” এই তথ্য ও বক্তব্য সম্পূর্ণ অসত্য এবং কল্পনাপ্রসূত। এ ধরনের কোন কথা বা ঘোষণা ২ তারিখের ঘোষিত মেনিফেস্টো, কর্মসূচি বা এজেন্ডায় উল্লেখ নেই। তিনি কিসের ভিত্তিতে এই ধরনের কল্পিত তথ্য উপস্থাপন করলেন তা আমাদের বোধগম্য নয়। আমরা চ্যালেঞ্জ করছি তিনি যেন তাঁর বক্তব্যের সত্যতা প্রমাণ করে নৈতিকতার পরিচয় দেন।

এবি পার্টি জানায়, তবে জামায়াতের আমীর কে আমরা ধন্যবাদ জানাই যে, তিনি তার বক্তব্যে স্পষ্ট করেছেন যে, তাদের সাথে আমাদের আদর্শিক পথ একেবারে আলাদা।









Leave a reply