বাদ পড়লেন বাবুনগরী, আহমদ শফীর উত্তরসূরি শেখ আহমদ

|

বাদ পড়লেন বাবুনগরী, আহমদ শফীর উত্তরসূরি শেখ আহমদ

জুনায়েদ বাবুনগরী, আল্লামা আহমদ শফী ও মাওলানা শেখ আহমদ। সংগৃহীত।

জুনায়েদ বাবুনগরীর বদলে হাটহাজারী মাদ্রাসার মুঈনে মুহতামিম (সহযোগী পরিচালক) হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন মাওলানা শেখ আহমদ। বুধবার চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসায় মজলিসে শূরার বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠকে বর্তমান মহাপরিচালক আল্লামা আহমদ শফী আমৃত্যু এ পদে থাকবেন বলেও সিদ্ধান্ত হয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হেফাজত নেতা জানিয়েছেন, নতুন সিদ্ধান্ত হিসেবে আল্লামা আহমদ শফীর মৃত্যুর পর শেখ আহমদই মাদ্রাসার মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করবেন। আল্লামা শেখ আহমদ বাংলাদেশের কওমি অঙ্গনে হাদিসের জনপ্রিয় শিক্ষক হিসেবে প্রসিদ্ধ। তিনি ১৯৫০ সালের ১৫ জানুয়ারি চট্টগ্রাম জেলার হাটহাজারী থানার মিরেরখীল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন।

শিক্ষা জীবনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দ্বীনি শিক্ষার প্রাণ কেন্দ্র হাটহাজারী মাদ্রাসায় লেখাপড়া শেষ করেন আল্লামা শেখ আহমদ। পড়াশোনা শেষে টানা ৩৫ বছর পর্যন্ত হাটহাজারী মাদ্রাসাতেই শিক্ষকতা করেন তিনি।

এরপর চট্টগ্রামের উবাইদিয়া নানুপুর মাদ্রাসায় কয়েক বছর শাইখুল হাদিস হিসেবে অধ্যাপনার পর ২০১৮ সালে তাকে আবার হাটহাজারীতে নিয়ে আসা হয়।

জানা যায়, বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকাল সোয়া ৩টা পর্যন্ত শূরা কমিটির বৈঠক চলে। বৈঠকে শুরুতে ছিলেন না জুনায়েদ বাবুনগরী। আড়াই ঘণ্টার বেশি সময় পর দুপুর পৌনে ১টার দিকে তিনি উপস্থিত হন। তখন তাকে বৈঠকের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়।

বাবুনগরীকে শুরু থেকে বৈঠকে না রাখার বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক হেফাজতে ইসলাম নেতা জানিয়েছেন, বাবুনগরী শুরা কমিটির সদস্য নন, তাই তাকে বৈঠকে রাখা হয়নি। তবে মাদ্রাসার আরেকটি সূত্র জানিয়েছে, ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত শুরা কমিটির বৈঠকে আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে শুরা সদস্য করা হয়। ওই সময় তাকে মাদ্রাসার সহযোগী পরিচালক করা হয়।

জানা গেছে, হাটহাজারী মাদ্রাসার শূরা সদস্যের কয়েকজন মৃত্যুবরণ করেছে। এরমধ্যে একজন শয্যাশায়ী হওয়ায় তিনি ছাড়া অন্যান্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

মজলিসে শূরার উল্লেখযোগ্য সদস্যরা হলেন- ঢাকার জামিয়া আরাবিয়া ইমদাদুল উলুম ফরিদাবাদ মাদ্রাসা পরিচালক ও হাইয়াতুল উলয়া কো-চেয়ারম্যান আল্লামা আব্দুল কুদ্দুস, ফরিদাবাদ মাদ্রাসার নায়েবে মুহতামিম ও বেফাক যুগ্ম-মহাসচিব মুফতি নুরুল আমিন, ঢাকার খিলগাঁও মাখজানুল উলুম মাদ্রাসার মাওলানা নুরুল ইসলাম জিহাদী, হাটহাজারীর আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া হামিউচ্ছুন্নাহ মেখল মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা নোমান ফয়জী, ফটিকছড়ির জামিয়া উবাইদিয়া নানুপুর মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা সালাহউদ্দিন নানুপুরী ও হাটহাজারীর ফতেপুর মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা মাহমুদুল হাসান ফতেপুরী।

এদিকে শূরা বৈঠক তথা মাদ্রাসার শীর্ষ পদে শাহ আহমদ শফীর উত্তরসূরি কে হবেন, তা নিয়ে প্রকাশ্যে আসা দুই পক্ষের দ্বন্দ্বে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে এমন শঙ্কায় হাটহাজারী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পুলিশের অতিরিক্ত ফোর্স মোতায়েন ছিল।









Leave a reply