ভাড়া না বাড়িয়েই পশ্চিমবঙ্গে বাস সার্ভিস চালু

|

আজ বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গে ভাড়া না বাড়িয়েই যত আসন, তত যাত্রী— এই নিয়মে বাস সার্ভিস চালু হয়েছে। এরআগে ভাড়া বৃদ্ধি-সহ বেশ কিছু দাবিদাওয়ার নিয়ে বেসরকারি বাসসেবা বন্ধ রেখেছিলো মালিকরা। খবর আনন্দবাজার।

করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে বেসরকারি গণপরিবহনের মালিকেরা ভাড়া বাড়ানোর দাবি তুলেছিলেন পশ্চিমবঙ্গ সরকারের কাছে। কিন্তু মমতা ব্যানার্জি এই আবদার-চাপে কিছুতেই টলেনি। বরং সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, এই অবস্থায় ভাড়া বাড়লে দীর্ঘদিন আয়-রোজগার ছাড়া কাটানো মানুষ ভোগান্তিতে পড়বে।

পরে বাস মালিকদের দাবিগুলো বিবেচনা নেয়ার রাজ্য পরিবহনমন্ত্রীর আশ্বাসে ধাপে ধাপে আজ থেকে বাসসেবা শুরু করেছে বাস মালিকরা।

জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেটস’র সাধারণ সম্পাদক তপন ব্যানার্জি বলেন, মন্ত্রী বিবেচনার আশ্বাস দেওয়ায় আমরা এখন পুরনো ভাড়াতেই বাস চালাতে রাজি হয়েছি।

এরআগে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি বলার পরও রাস্তায় নামেনি অধিকাংশ বেসরকারি বাস-মিনিবাস৷ এরপর ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে দফায় দফায় পরিবহন দফতরের সঙ্গে বৈঠক হয় বাস মিনিবাস মালিক সংগঠনের৷ পরে সংগঠনের দাবি মেনে ভাড়া বাড়ানোর দাবি পর্যালোচনা করতে রাজ্য সরকার থেকে রেগুলেটরি কমিটি গড়ার পরে রাস্তায় বাস নামানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মালিকরা।

এরআগে পরিবহণ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, কোনও বাসেই ভাড়া বাড়াবে না সরকার। সরকারি বাসের পরিসেবা আরও বাড়ানো হবে।

ইতিমধ্যে অটো-ট্যাক্সি-ক্যাবে যত আসন, তত যাত্রী নিয়ে তা চালানোর অনুমতি দেয়া হয়েছে।

এদিকে বুধবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি জানান, গণ পরিবহনের অভাবে কর্মীরা অফিসে আসতে গিয়ে সমস্যায় পড়ছেন। অনেকের অফিসে ঢুকতে দেরি হচ্ছে। তা একেবারেই অস্বাভাবিক নয়। তাই আগামী এক মাস সরকারি কর্মচারীদের অফিসে আসতে দেরি হলেও লাল কালি পড়বে না। মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বাসে চড়লে মাস্ক ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক বলেও জানান মুখ্যমন্ত্রী।

টিবিজেড/









Leave a reply