নাতি জামাইয়ের লাঠির আঘাতে দাদা শ্বশুর নিহত, গ্রেফতার ৩

|

গাইবান্ধা প্রতিনিধি:

গাইবান্ধার ফুলছড়িতে পারিবারিক কলহের জের ধরে নাতি জামাইয়ের লাঠির আঘাতে দাদা শ্বশুর খোরশেদ আলম ওরফে খোকা মিয়া (৬৫) নিহত হয়েছেন। এসময় রেবা বেগম (৩৫) ও মলো বেগমসহ (২৬) অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন।

সোমবার সকালে ফুলছড়ি থানায় নিহতের পরিবারের পক্ষে একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। পরে এ ঘটনায় পুলিশ জড়িত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন, ওই গ্রামের জয়নাল আবেদীন, অহিদুল ইসলাম ও আকালু শেখ।

এর আগে, রবিবার সন্ধ্যায় ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী ইউনিয়নের উত্তর বুড়াইল গ্রামে লাঠির আঘাতে আহত হন খোকা মিয়া। পরে অসুস্থ্ অবস্থায় রাতেই ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে মারা যান তিনি।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, উত্তর বুড়াইল গ্রামের খোরশেদ আলম খোকা মিয়ার পরিবারের সাথে দীর্ঘ থেকে নজরুল ইসলামের পরিবারের দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। এর জের ধরে গত শনিবার খোকা মিয়ার পরিবারের ব্যবহৃত টিউবওয়েলের পাইপ লাইন কেটে দেয় নজরুল ইসলাম ও তার লোকজন। পরে রবিবার সন্ধ্যায় উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে নজরুল ইসলাম ও তার লোকজন খোকা মিয়ার পরিবারের উপর হামলা করে। এসময় নাতি জামাই অহিদুল ইসলামের লাঠির আঘাতে খোকা মিয়া গুরুতর আহত হয়। পরে রাতেই তাকে উদ্ধার করে ফুলছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে ফুলছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাওছার আলী জানান, খোকা মিয়া নিহতের ঘটনায় সোমবার সকালে পরিবারের পক্ষে থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত তিন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মামলার অন্য আসামিদেরও গ্রেফতারে চেষ্টা চালছে। এছাড়া নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তবে লাঠির আঘাতে খোকা মিয়ার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply