কুড়িগ্রামে ডুবছে ধান, দিশেহারা কৃষক

|

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

টানা বৃষ্টি আর উজানের ঢলে আকস্মিক ভাবে কুড়িগ্রামের ছোট-বড় ১৬টি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। ফলে চরাঞ্চলে থাকে নিচু জমির পাকা ধান ক্ষেত তলিয়ে গেছে। চোখের সামনে
শেষ সম্বলটুকু পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকের চোখে মুখে এখন হতাশার ছাপ।

শনিবার সরেজমিনে দেখা যায়, জেলার চিলমারী উপজেলায় টানা বর্ষণ এবং উজান থেকে নেমে আসা পানির ঢলে ব্রহ্মপুত্র এবং তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছ। এতে করে আশপাশের নিম্নাঞ্চলের কয়েক বিঘা পাকা ধানের জমি তলিয়ে গেছে। ধান ঘরে তোলার আগেই ধান ডুবে যাওয়ায় দিশাহারা হয়ে পরেছে কৃষকেরা। করোনার প্রভাব সামলে উঠতে না উঠতে ফসল ডুবে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছেন তারা।

কৃষক মতিয়ার বলেন, করোনায় কষ্ট হলেও আশা ছিল জমির ধান কেটে ঘরে তুলবো। দু’বেলা ভালো ভাবে ভাত খেতে পারবো। কিন্তু পানি বৃদ্ধি সব শেষ করে দিল।

ধান তোলার স্বপ্ন ধূলিসাৎ হয়ে যাওয়ায় পরিবার নিয়ে আগামী দিন কিভাবে চলবে তা ভেবে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন কৃষক আনছার আলীও।

কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে পাট চাষিদেরও। জেলার প্রায় একশ হেক্টর জমির পাট নিয়ে বিপাকে পড়েছেন কৃষকরা।

উপজেলা কৃষি অফিসার প্রণয় কুমার বিষাণ দাস জানান, চিলমারীতে ছয় হাজার তিনশ হেক্টর জমিতে ধান চাষ হয়েছে। এরমধ্যে প্রায় শতাধিক বিঘা জমির ধান ডুবে গেছে এবং পানির নিচে তলিয়ে গেছে দুই হেক্টর জমির পাট।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply