সিএনজি ডাকুন হ্যালো অ্যাপ দিয়ে

|

একটা সময় ছিল, সিএনজি অটোরিক্সার এতোই চাহিদা যে তারা তাদের ইচ্ছা মাফিক চলতো। আর ভাড়া, ভাগ্যিস তারা হয়তো বিমানের ভাড়া জানে না; জানলে, মনে হয় তাই চেয়ে বসতো!

২০১৬ সালে রাইড শেয়ারিং সেবা চালু হওয়ার পর সিএনজি চালিত অটোরিক্সাওয়ালাদের দুর্দিন শুরু হয়। এ সেবা বন্ধে ধর্মঘটে নেমেও কোনো কাজ হয়নি, উল্টো গালমন্দ শুনতে হয়েছে। শেষমেষ নিজেদেরই বদলানোর উদ্যোগ নিয়েছে তারা। মানে তারাও উবার-পাঠাও-এর মতো অ্যাপভিত্তিক সেবা প্রদানের পথে আসছে। সেই পথ ধরে এসেছে হ্যালো অ্যাপ।

শুধু সিএনজি অটোরিক্সা নয়, হ্যালো অ্যাপে আপনি ট্যাক্সি, এবং মটর সাইকেল রাইডিং সুবিধাও পাবেন। তো কি আছে হ্যালো অ্যাপে? জেনে নিন, এক পলকে।

 

 

কিভাবে পাবেন হ্যালো পাবেন?

অ্যান্ড্রয়েড ব্যাবহারকারীরা গুগলের প্লে স্টোরে গিয়ে সার্চ দিন HELLOW লিখে। অ্যাপলের আইওএসের অ্যাপ স্টোরে সার্চ দিতে হবে HELLOW PASSENGER লিখে। ডাউনলোড করে ফোনে অ্যাপটি খুলুন। প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করুন। ঝামেলা এড়াতে চাইলে ফেসবুক একাউন্ট দিয়েও নিবন্ধন করতে পারেন। মোবাইল ভেরিফিকেশনের পর পেমেন্ট প্রক্রিয়া নির্ধারণ করুন। ব্যাস সেট আপ হয়ে গেলো অ্যাপস। আপনার অবস্থান ও গন্তব্য জানিয়ে রাইডের জন্য অনুরোধ পাঠান। অনুরোধটি গ্রহণ করা হলে আপনি চালকের ছবি, সিএনজি অথবা মটর সাইকেলের বিস্তারিত তথ্য, এবং অবস্থান জানতে পারবেন।  গাড়িতে উঠে ট্রিপ চালু করুন, এবং সাথে সাথে আপনি যাত্রা পথের বিভিন্ন তথ্য পেয়ে যাবেন।

আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় বলে রাখা ভালো-গাড়িতে ওঠার আগে অ্যাপে পাঠানো ছবি ও তথ্যের সঙ্গে চালক ও গাড়ির তথ্য মিলিয়ে নিন, এবং নিরাপদ থাকুন।

ফিচারে কি কি থাকছে?

  • প্রতিনিয়ত আপনার যাত্রা তদারিক করতে পারবেন।
  • ভাড়ার হিসাব দেখতে পাবেন।
  • আগের যাতায়াতের তথ্যগুলোও জানতে পারবেন।
  • রেফারেন্স কোড ব্যবহারে ভাড়ায় ছাড় পাবেন, এবং কোডটি অপরের সঙ্গে বিনিময়ও করতে পারবেন।
  • কোনো অভিযোগ বা সমস্যা থাকলে অ্যাপের মাধ্যেমই জানাতে পারবেন।
  • যে কোন জায়গায় যেতে অ্যাপটিতে সর্বশেষ তথ্য পাবেন।
  • নিরাপদ চলাচল ও নিরাপত্তার জন্য থাকছে জিপিএস-এর মাধ্যমে পাবেন সার্বক্ষণিক মনিটরিং সুবিধা।

দিন রাত ২৪ ঘন্টায়, এ হ্যালো অ্যাপটির মাধ্যমে রাইড সুবিধা পাওয়া যাবে। তবে, রাইডের জন্য অনুরোধ পাঠাবার আগে ভাড়ার পরিমানটা অ্যাপে দেখে নিন। নিরাপত্তার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে অ্যাপ নির্ধারিত পথে চলুন।

ভাড়া পরিশোধ করবেন কিভাবে?

ভাড়া পরিশোধের জন্য রয়েছে বেশ কয়েকটি পদ্ধতি। নগদ পরিশোধের পাশাপাশি মোবাইল ব্যাংকিং সেবা বিকাশের মাধ্যমেও মাধ্যমেও ভাড়া পরিশোধ করা যাবে। তবে, এখনও ভাড়ার হার অানুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি।

সবশেষে রাইড সেবাটি যদি পছন্দ না হয় তবে অ্যাপের মাধ্যমে অভিযোগ জানাতে পারবেন। শুধু তাই থাকছে ড্রাইভারের সার্বিক সেবার রেটিং করার সুযোগ।

মোবাইলে হ্যালো অ্যাপটি সেট আপ করলেও এখনই আবার সিএনজি ডাকতে যাবেন না। সার্ভিসটি আনুষ্ঠানিকভাবে চালু হবে ১ মার্চ থেকে। এবার দেখার পালা অন্তত সময়মতো পরিবহন সেবার পাওয়ার ক্ষেত্রে ঢাকাবাসীর জীবনে কতটা স্বস্তি আসে?

যমুনা অনলাইন: এফএইচ









Leave a reply