পটুয়াখালীতে প্রায় দেড় কি.মি. ভাঙ্গা বেড়িবাঁধসহ ক্ষতিগ্রস্ত ১৫ কি.মি.

|

ভাঙ্গা বেড়িবাঁধ পরিদর্শন করছেন জেলা প্রশাসকসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ

ঘূর্ণিঝড় আম্পান ও অমাবশ্যার প্রভাবে জলোচ্ছাস সৃষ্টিতে পটুয়াখালীর ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে গেছে এবং মোট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ১৫ কিলোমিটার বাঁধ।

আজ দুপুরে জেলা প্রশাসকসহ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা পটুয়াখালী সদর উপজেলার মাটিভাংগা, ভাজনা, মির্জাগঞ্জ উপজেলার গোলখালীসহ দুমকী উপজেলার কয়েকটি জায়গা পরিদর্শন করেন। পরিদর্শন শেষে জেলা প্রশাসক মোঃ মতিউল ইসলাম চৌধুরী দ্রুততম সময়ের মধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধসমূহ মেরামতের নির্দেশনা প্রদান করেন। এসময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী, উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলীসহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহি প্রকৌশলী মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, জেলায় মোট বেড়িবাঁধ রয়েছে ১৩৫০ কিলোমিটার। এর মধ্যে মির্জাগঞ্জ উপজেলার গোলখালী, সুন্দ্রাকালিকাপুর, ভিকাখালীতে ভেঙ্গে গেছে দুর্বল বেড়িবাঁধ। বেড়িবাঁধ ভেঙ্গেছে সদর উপজেলার ভাজনা, মাটিভাঙ্গা, নন্দীপাড়া ও ঘোপখালী. দশমিনা উপজেলার রনগোপালদী, গলাচিপা উপজেলায় পানপট্টি, বদনাতলী, ডকুয়া। বাউফল উপজেলার ভুরিয়া, বামনিকাঠি। দুমকি উপজেলার চরবয়রা ও আঙ্গারিয়া। রাঙ্গাবালী উপজেলার চরলতা, মৌডুবি, চরআন্ডা, কাউখালী ও চরকাশেমের বিভিন্ন পয়েন্টে। এছাড়া জেলায় মোট ১ দশমিক ৭ কিলোমিটার বেড়িবাঁধ ভাঙ্গা রয়েছে। এছাড়া ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে প্রায় ১৫ কিলোমিটার বাঁধ।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply