করোনা শনাক্তে নতুন কিট আবিষ্কার করলো আর্জেন্টিনা

|

বিশ্বজুড়ে করোনা পরীক্ষায় ব্যবহার হচ্ছে পিসিআর পদ্ধতি। যদিও এটি কিছুটা সময় সাপেক্ষ। দ্রুত ফল পেতে আর্জেন্টাইন গবেষকরা আবিষ্কার করেছেন নিওকিট কোভিড নাইনটিন। নিজস্ব প্রযুক্তিতে তৈরি এ কিটের মাধ্যমে খুব দ্রুত পাওয়া যাবে নমুনা পরীক্ষার ফল। কাঁচামাল সহজলভ্য বলে খরচও হবে বেশ কম এমনটাই জানাচ্ছেন দেশটির গবেষকরা। সহজ কাঁচামালে এতে মাত্র ৮ ডলার খরচ হবে পড়বে বলে দাবি তাদের। ‘নিওকিট-কোভিড নাইনটিন’ নামের র‍্যাপিড টেস্ট পদ্ধতিটি সম্প্রতি নজর কেড়েছে আন্তর্জাতিক মহলের।

গবেষকরা জানান, নমুনার সাথে এক ধরণের লিকুইড সলিউশন মিশিয়ে পাওয়া যায় ফল। রং পরিবর্তনে জানা যায় ভাইরাসের উপস্থিতি সম্পর্কে।

গবেষক সান্টিয়াগো ওয়েরবেইন বলেন, নমুনার সাথে এক ধরণের রাসায়নিক মিশ্রিত করা হয় একটি সিংগেল টিউবে। অনেকটা পিসিআর-এর মতোই। তবে পার্থক্য হলো, এখানে একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রার ব্যবস্থা করা হয়। এক ঘণ্টার মধ্যেই নমুনার রংয়ে পরিবর্তন আসে। বেগুনি রংয়ের অর্থ হলো, পরীক্ষার ফল নেগেটিভ। আর মিশ্রনের রং নীল হলে বুঝতে হবে করোনা আক্রান্ত।

সহজলভ্য, সাশ্রয়ী ও দ্রুত ফল লাভের সুযোগ থাকায়, গণপরীক্ষার ক্ষেত্রে অত্যন্ত কার্যকরী হবে এ পদ্ধতিটি। দাবি, উদ্ভাবনকারী গবেষক দলের।

সান্টিয়াগো ওয়েরবেইন বলেন, এটা খুবই সহজ একটি প্রক্রিয়া। আর খুব সাশ্রয়ীও। সহজলভ্যতার কারণে গণপরীক্ষার ক্ষেত্রে উপকারী হবে এ টেস্ট।

নিওকিট উদ্ভাবন, মহামারি মোকাবেলায় দেশের অন্যতম বড় পদক্ষেপ। বলছেন প্রেসিডেন্ট আলবার্তো ফার্নান্দেজ। বিদেশেও কিট রফতানির আগ্রহ তার।

আর্জেন্টাইন বিজ্ঞান, প্রযুক্তি ও উদ্ভাবন বিষয়ক মন্ত্রী রবার্তো কার্লোস সালভারেৎজা বলেন, অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সব প্রদেশেই এ পদ্ধতিতে পরীক্ষা চালু হবে। প্রতিবেশিসহ অন্যান্য দেশেও এই কিট সরবরাহ করতে চাই। বেশ কিছু দূতাবাসের সাথে আলোচনাও হয়েছে।

নিওকিটের মাধ্যমে ১০ দিনের মধ্যে ১০ হাজার নমুনা পরীক্ষার পরিকল্পনা আজেন্টাইন স্বাস্থ্য বিভাগের।









Leave a reply