শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে ফেরি চলাচল শুরু

|

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি রুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর:

লকডাউনে ফেরি সার্ভিস সম্পূর্ণ বন্ধের সাথে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে ৩ দিন বন্ধ থাকার পর শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। ফেরিগুলোতে জরুরি এ্যাম্বুলেন্স, ব্যক্তিগত পরিবহন,
কাঁচামালবাহী ও পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার করা হচ্ছে। মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ ব্যারিকেড দিয়ে যাত্রীবাহী পরিবহন উল্টোপথে ফিরিয়ে দিচ্ছেন।

এছাড়া উভয় পাড়ে আটকে পড়া যাত্রীবাহী পরিবহন ও সাধারণ যাত্রীদের ঘাট থেকেই উল্টোপথে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন।

জানা যায়, শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটের ফেরিগুলোতে উভয়মুখী যাত্রীদের উপচেপড়া ভিড় থামাতে গত মঙ্গলবার সকাল থেকে ফেরি সার্ভিস বন্ধ করে দেয় বিআইডব্লিউটিসি। এদিন থেকেই কোনো ধরনের পরিবহন ও যাত্রী পার হতে দেয়নি পুলিশ। এতে উভয় ঘাটে আটকে পড়ে সহস্রাধিক ছোট বড় পরিবহন, জরুরি এ্যাম্বুলেন্স, কাঁচামাল ও পণ্যবাহী ট্রাক।

এদিকে, পুলিশ ঘাট এলাকা থেকে যাত্রীবাহী পরিবহন ও সাধারণ যাত্রীদের ঘাট এলাকা ত্যাগ করে উল্টোপথে ফিরে যাওয়ার নির্দেশ দেন। ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাব কাটলে শুক্রবার সকাল থেকে ফেরি চলাচল শুরু করে বিআইডব্লিউটিসি। এদিন সকাল থেকে ১২টি ফেরি দিয়ে জরুরি এ্যাম্বুলেন্স, ব্যক্তিগত পরিবহন, কাঁচামালবাহী ও পণ্যবাহী ট্রাক পারাপার করা শুরু হয়। যানবাহনের চাপ কমে যাওয়ায় দুপুর থেকে ৮টি ফেরি সার্ভিস সচল রাখা হয়।

বিআইডব্লিউটিসি কাঁঠালবাড়ি ঘাট সহকারী ম্যানেজার ভজন সাহা বলেন, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সকাল থেকে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে। জরুরি এ্যাম্বুলেন্স, ব্যক্তিগত গাড়ি, কাঁচামাল ও পণ্যবাহী
ট্রাক ছাড়া অন্য কোনো গাড়ি বা সাধারণ যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে না। সকালে ১২টি ফেরি চলাচল শুরু হলেও যানবাহনের চাপ না থাকায় দুপুর থেকে ৮টি ফেরি সচল রাখা হয়েছে।









Leave a reply