গাজীপুরে র‌্যাবের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ধর্ষণ মামলার আসামি নিহত

|

গাজীপুর প্রতিনিধি:

গাজীপুরের টঙ্গীর মধুমিতা রেল লাইন এলাকায় রাত ১২টার দিকে র‌্যাবের সাথে বন্দুকযুদ্ধে শিশু ধর্ষণ
ও হত্যার মূল আসামি আবু সুফিয়ান (২২) নামের একজন নিহত হয়েছে। এসময় তিন রাউন্ড গুলি ও একটি বিদেশি অস্ত্র উদ্ধার করে র‌্যাব।

গত ১৬ মে টঙ্গী মধুমিতা রেল গেইট এলাকার একটি ময়লার স্তূপ থেকে চাঁদনী (৭) নামে প্রথম শ্রেণির মাদ্রাসার ছাত্রীকে ধর্ষণের পর গলা টিপে এবং দুই পায়ে আঘাত করে নির্মমভাবে হত্যা করার আসামি মো. নিলয় (১৫) নামের একজনকে গ্রেফতার করেছিল র‌্যাব।

নিলয়ের দেয়া তথ্য মতে রাত ১২টার দিকে মধুমিতা রেল লাইন এলাকায় অভিযানের সময় ক্রসফায়ারে নিহত হয় মূল আসামি আবু সুফিয়ান।

উল্লেখ্য, গত ১৫ মে ২০২০ তারিখ বিকাল ০৩টার দিকে চাঁদনী মাঠে খেলাধুলা করতে আসলে আসামি নিলয় এবং ঘটনার অন্যতম হোতা তার পলাতক সহযোগী মিলে ভিকটিম চাঁদনীকে চোখে চোখে রাখে এবং খেলাধুলা চলাকালীন নিলয় তাকে কৃষ্ণচূড়া গাছ থেকে ফুল পেড়ে দেয়। বাসায় ফেরার পথে আসামি নিলয় ও তার সহযোগী পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে নিহত চাঁদনীকে চকলেট কিনে দেওয়ার নাম করে পার্শ্ববর্তী টঙ্গীস্থ মধুমিতা রেল গেইট এলাকায় সজীবের ইটের স্তূপের আড়ালে নিয়ে যায়। এর পর প্রথমে আসামি নিলয় ভিকটিমের দুই হাত মুখ চেপে ধরে রাখে এবং তার সহযোগী শিশু চাঁদনীকে ধর্ষণ করে।

এভাবে তারা দুইজনই ভিকটিমকে জোড়পূর্বক পালাক্রমে একাধিকবার গণধর্ষণ করে। পরে চাঁদনীর গলা টিপে ও দুই পায়ে আঘাত করে নির্মমভাবে হত্যা করে। পরবর্তীতে তারা ভিকটিম চাঁদনীর মরদেহ ময়লার স্তূপে ফেলে রেখে সেখান হতে দ্রুত পালিয়ে যায়। এই ধর্ষণ ও হত্যা মামলার পলাতক প্রধান আসামিকে আটক করতে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।









Leave a reply