ট্রাম্পের ভিত্তিহীন অভিযোগে বেড়েছে হেট ক্রাইম

|

করোনার এই সঙ্কটের মধ্যেই ইউরোপ-আমেরিকায় উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে হেট ক্রাইম। আর এইসব ক্রাইমের বেশিরভাগ ভুক্তভোগীই হচ্ছেন এশিয়ার বিভিন্ন দেশের নাগরিকরা। তথ্য বলছে, শুধু লন্ডনেই ফেব্রুয়ারি এবং মার্চে দেড় শতাধিক হেট ক্রাইমের ঘটনা ঘটেছে।

চীনা কমিউনিটির দাবি, ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাকে চীনা ভাইরাস আখ্যা দেয়ার পর থেকেই বেড়েছে বর্ণবাদী এই অপরাধের হার।

কানাডার ভ্যানকুভার পুলিশ বিভাগের কর্মকর্তা তানিয়া ভিসিনতিন বলেন, কয়েক দিন ধরে প্রতিদিনই প্রায় হেট ক্রাইমের অভিযোগ পাচ্ছি। নিরাপত্তাহীনতার অভিযোগ করা সবাই প্রায় এশিয়ার নাগরিক। প্রাথমিক ভাবে মনে হচ্ছে সন্দেহভাজনরা মানসিক ভাবে অসুস্থতার কারণে এমন আচরণ করছে।

শুধু কানাডায় নয়, ইউরোপ ও আমেরিকার অন্যান্য দেশেও বর্ণবাদী আচরণের শিকার হচ্ছেন এশিয়ানরা এমন চিত্র উঠে এসেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ব্রিটেন পুলিশের তথ্যে দেখা যায় ফেব্রুয়ারি এবং মার্চে শুধু লন্ডনেই এ ধরণের হামলার ঘটনা ঘটেছে দেড় শতাধিক। যা গেলো বছরের একই সময়ের চেয়ে কয়েক গুণ।

ভুক্তভোগীদের দাবি, মার্কিন প্রেসিডেন্ট করোনাকে ‘চীনা ভাইরাস’ হিসেবে আখ্যা দেয়ার পর থেকেই বেড়েছে এ ধরণের হামলার ঘটনা।

হামলাকারীদের ধারণা, ইউরোপ আমেরিকায় প্রাণঘাতী এই ভাইরাসের বাহক এশিয়ানরা। আর সেই ক্ষোভ থেকেই এমন হামলা, যা ভিত্তিহীন বলছেন বিশ্লেষকরা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply