যে কারণে ভার্চুয়াল জামিন শুনানিতে অংশ নেননি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আইনজীবীরা

|

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অধিকাংশ আইনজীবী ভার্চুয়াল জামিন শুনানিতে অংশ গ্রহণ থেকে বিরত থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। প্রধান বিচারপতি হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশক্রমে শুধুমাত্র জামিন সংক্রান্ত শুনানির বিষয়ে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার করে ভার্চুয়াল শুনানির মাধ্যমে আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। রবিবার ১০ মে সুপ্রিম কোটের রেজিস্টার জেনারেল মো. আলী আকবর স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে এ সংক্রান্ত বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করা হয়।

কিন্তু নতুন তথ্য প্রযুক্তির সাথে পূর্বে অভিজ্ঞতা না থাকায় কারণে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আইনজীবীরা সোমবার ভার্চুয়াল জামিন শুনানিতে অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকেন।
পরে ভার্চুয়াল জামিন শুনানি নিয়ে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে আইনজীবীরা তাদের আপত্তির কথা জানায়।

আজ সোমবার বিকেলে আইনজীবী সমিতির দ্বিতীয় তলায় আইনজীবী সমিতিসহ শতাধিক আইনজীবী এক অনির্ধারিত বৈঠক করেন।

সমিতির সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মামুনের সঞ্চালনায় বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি শফিউল ইসলাম।

এসময় আইনজীবীরা বলেন, স্মার্টফোন না থাকা, ইন্টারনেট সম্পর্কে স্পষ্ট ধারনার অভাব সহ জামিন শুনানির কপি স্ক্যান করাসহ নানা বিষয়ে জটিলতা সৃষ্টির আশংকায় আপাতত ভার্চুয়াল শুনানিতে অংশ নিবেন না বলে তারা আইনজীবী সমিতিকে জানান ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. কামরুজ্জামান মামুন সাংবাদিকদের জানান, প্রধান বিচারপতি ও হাইকোর্ট বিভাগের নির্দেশক্রমে আদালত থেকে আমাদেরকে ভার্চুয়াল শুনানির মাধ্যমে আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার কথা জানানো হয়েছে। এর পর সোমবার ১১ মে সকালে কয়েকজন আইনজীবী বিচারকদের সঙ্গে যোগাযোগ করে প্রশিক্ষণ নেন এবং সমিতির পক্ষ থেকে দুটি মামলা দাখিল করা হয়। কিন্তু ভার্চুয়াল কোর্ট পরিচালনা করার জন্য আমাদের আইনজীবীদের আমন্ত্রণ জানিয়েছি ও বুঝানোর চেষ্টা করেছি। কিন্তু আমাদের আইনজীবীরা এটাকে মানিয়ে নিতে পারছেন না। তারা এই পদ্ধতি বুঝতে চায় না। এবং তাদের কাছে তা জটিল মনে হয়। ইন্টারনেট সমস্যাসহ অনেক কারণেই আইনজীবীরা এই পদ্ধতিতে যাবে না বলে জানিয়েছে। পাশাপাশি সপ্তাহে দুইদিন নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে সীমিত আকারে সরাসরি ভাবে কোর্ট পরিচালনা করার দাবি জানিয়েছে।









Leave a reply