টেকনাফে আবারও ‘পঙ্গপাল’ সদৃশ পোকার হানা

|

কক্সবাজারের টেকনাফে আবারও দেখা দিয়েছে পঙ্গপাল সদৃশ পোকার হানা। টেকনাফ সদর ইউনিয়নের লম্বরী এলাকায় সোহেল সিকদারের বসত ভিটায় হানা দেয় এই পোকা গুলো।

খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে টেকনাফ উপজেলা কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কীটনাশক ছিটিয়েছেন। এর আগেও গত ২০ এপ্রিল কীটনাশক ছিটিয়ে পোকাগুলো দমনের চেষ্টা করা হয়েছিল, তবে নতুন করে আবারও পোকাগুলোর দেখা মিলেছে।

উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শফিউল আলম বলেন, শুধু একটি মাত্র বসতভিটায় পঙ্গপাল সদৃশ পোকাগুলোর দেখা মিলছে। পঙ্গপালের মতো হলেও এই পোকাগুলোর পাখা নেই। এরা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় লাফিয়ে চলাফেরা করছে।

এসময় এগুলো আসলে পঙ্গপাল কিনা তা জানার জন্য কৃষি বিভাগের বিশেষজ্ঞদের কাছে পোকাগুলোর নমুনা পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।

কৃষি বিভাগ বলছে তারা পোকা গুলোর নমুনা সংগ্রহ করেছেন এবং এগুলো আসলেই পঙ্গপাল কিনা তা জানতে বিশেষজ্ঞদের শরণাপন্ন হয়েছেন।

কক্সবাজার কৃষি বিভাগের উপ পরিচালক মো. আবুল কাশেম জানান, পোকাগুলো পঙ্গপাল কিনা তা এখনো আমরা নিশ্চিত হতে পারিনি। গাজীপুর বঙ্গবন্ধু কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ও ঢাকা কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউটে বিশেষজ্ঞদের কাছে পোকাগুলোর ভিডিও চিত্র পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার একজন বিদেশী বিশেষজ্ঞসহ একটি টীম টেকনাফের লম্বরী গ্রামে সরেজমিন পরিদর্শনে যাওয়ার কথা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, সপ্তাহ দুয়েক আগে সোহেল সিকদারের বসতভিটায় হানা দেয় পঙ্গপাল সদৃশ পোকাগুলো। দেখতে অনেকটার পঙ্গপাল’র মত শত শত পোকা দল বেধে গাছের পাতা ও শাখায় বসে একের পর এক গাছের পাতা খেয়ে ফেলতে থাকে। পোকাগুলো আম গাছ, তেরশলগাছসহ অন্যান্য বেশকটি গাছের পাতা খেয়ে নষ্ট করে ফেলে। কোথাও কোথাও শাখা ছাড়া কোন পাতা নেই। আবার কোথাও কোথাও পাতা ঝলসে গেছে।









Leave a reply