যুক্তরাজ্যে মরদেহ দাফনে মুসলিম কমিউনিটির ব্যতিক্রমী উদ্যোগ

|

করোনায় মৃতদের ধর্মীয় রীতি মেনে দাফন নিশ্চিত করতে ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ নিয়েছে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম শহরের মুসলিম কমিউনিটি। শহরের কেন্দ্রীয় মসজিদের জায়গাতেই গড়ে তোলা হয়েছে অস্থায়ী একটি মর্গ। করোনায় মৃতদের মরদেহ এখানেই সংরক্ষণ করছে তারা।

জানা যায়, মর্গে ধর্মীয় রীতি অনুযায়ী গোসল দেয়া থেকে শুরু করে নিশ্চিত করছেন শেষ বিদায়ের সব প্রক্রিয়া। উল্লেখ্য, ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের তালিকাতেও কম নয় মুসলিমদের সংখ্যা।

বার্মিংহাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ট্রাস্টি মোহাম্মদ জাহিদ জানান, প্রতিদিন কয়েক’শ মৃত্যু হওয়ায় অনেকটা তড়িঘড়ি করেই সারতে হয় শেষ বিদায়ের প্রক্রিয়া। অনেকক্ষেত্রে মানা হয় না ধর্মীয় রীতি-নীতিও। এ অবস্থায়, দাফন-কার্যে ধর্মীয় রীতি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিজেরাই অস্থায়ী মর্গ স্থাপন করেছে বার্মিংহামের মুসলিম কমিউনিটি। মর্গের জন্য, নিজেদের জায়গা ছেড়ে দিয়েছে বার্মিংহামের কেন্দ্রীয় মসজিদ।

তিনি আরও জানান, এখানে প্রায় সব পরিবারেই কারো না কারো স্বজন মারা গেছেন। আমার ফুফুও পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছেন। শোকাহত পরিবারগুলোকে একটু স্বস্তি দিতে এ পদক্ষেপ। অভিজ্ঞতায় দেখছি, একই পরিবারের একাধিক সদস্য মারা যাচ্ছে। সান্ত্বনা দিতেও কেউ যেতে পারছে না। এ কঠিন পরিস্থিতিতে তাদের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছি।

তিনি বলেন, মসজিদের গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য বরাদ্দ জায়গাকে পরিণত করা হয়েছে মর্গে। মরদেহ সংরক্ষণে আছে শীতাতপ-নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা। কবরের ব্যবস্থা হওয়ার আগ পর্যন্ত, সংরক্ষণ ও মৃতদেহের গোসল-সব সারা হয় এখানেই।

মোহাম্মদ জাহিদ জানান, আমাদের ধর্মে মৃতদেহ পোড়ানোর বিধান নেই। কিন্তু কবরের ব্যবস্থা করতে এখন লম্বা সময় লাগছে। এছাড়া গোসল, কাফনে মোড়ানো জানাজা সব রীতি পালন কিছুটা সময়সাপেক্ষ। পুরো প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়া পর্যন্ত যাতে মৃতদেহ সংরক্ষণ করা যায় সেটাই উদ্দেশ্য। এছাড়া মসজিদ কম্পাউন্ডের ভেতরে অবস্থিত এ মর্গে, মোট দেড়শ মরদেহ সংরক্ষনের ব্যবস্থা আছে বলেও জানান তিনি।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply