চিকিৎসায় সাফল্য আনতে পারে করোনায় সুস্থ হওয়াদের রক্তের অ্যান্টিবডি

|

করোনাভাইরাস থেকে যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের রক্তের অ্যান্টিবডি ব্যবহার করে ঝুঁকিপূর্ণ রোগীদের চিকিৎসায় আসতে পারে সাফল্য। যমুনা নিউজকে এমনটিই জানালেন যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি চিকিৎসক ওমর আশরাফ।

মহাদুর্যোগের এ মুহূর্তে সামনে থেকে লড়াই চালিয়ে যাওয়া চিকিৎসকদের মধ্যে অন্যতম ডা. ওমর দায়িত্বরত আছেন নিউইয়র্কের এল্মহার্স্ট হাসপাতালে। যার অধীনে কাজ করছেন ১৮জন চিকিৎসক।

চরম ঝুঁকি নিয়েই নিউইয়র্কে রোগীদের সেবা দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। দুর্যোগের এ মুহূর্তে ফ্রন্টলাইন চিকিৎসকদের মধ্যে আছেন অনেক বাংলাদেশিও। এদেরই একজন ডা. ওমর আশরাফ। যুক্তরাষ্ট্রে করোনার চিকিৎসা পদ্ধতি নিয়ে জানালেন ফ্রন্টলাইনের এই রিয়েল সুপারহিরো।

নিউইয়র্কোর এল্মহার্স্ট হাসপাতালের চিকিৎসত ডা. ওমর আশরাফ বলেন, করোনা ভাইরাসে যারা আক্রান্ত হয় তারা অধিকাংশই সামান্য উপসর্গ নিয়ে আসে এবং সুস্থ হয়ে যায়। তবে যারা মারা যায় বুঝা যায়না তারা কোন উপসর্গের অংশটা।

বৈশ্বিক মহামারী তৈরিকারী নতুন ভাইরাসের বিরুদ্ধে খুব দ্রুত কার্যকরী ওষুধ তৈরির বিষয়েও আশাবাদ জানান ডা. ওমর।

ডা. ওমর বলেন, আমি ২৫ বছরের উপরে সংক্রামক বিশেষজ্ঞ হিসেবে কাজ করছি। আমরা ইতিমধ্যেই দুই তিন ধরণের ওষুধ ব্যবহার করছি। আরো কিছু ওষুধ এ সপ্তাহের মধ্যেই ব্যবহার করা শুরু করবো।

এরই মধ্যে যারা সুস্থ হয়েছেন তাদের রক্ত থেকে নেয়া অ্যান্টিবডি আশঙ্কাজনক রোগীদের শরীরে প্রয়োগের মাধ্যমে সুফল পাওয়া যেতে পারে, বলে মনে করেন এই চিকিৎসক।

ডা. ওমর বলেন, যেসব রোগীরা এখন মারা যাচ্ছে তাদের ক্ষেত্রে কিছু করতে না পারলেও যারা সুস্থ হয়ে উঠছেন তাদের রক্ত থেকে নেয়া অ্যান্টিবডি ইনজেক্ট করে সংকটাপন্ন রোগীদের বাচাতে সক্ষম হবো।

পুরো বিশ্বেই যখন করোনা আতঙ্কের ছায়া, তখন মহামারী মোকাবেলায় অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন এইসব যোদ্ধারা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে তাদের এই প্রচেষ্টা নিশ্চিতভাবেই সাহায্য করছে রোগীদের মনোবল বাড়াতে।









Leave a reply