করোনায় মৃতদের লাশ দাফনে এগিয়ে আসার স্ট্যাটাস নিয়ে যা বললেন ইউএনও

|

যারা করোনা সতর্কতা মানছেন না এবং আক্রান্ত হবেন না ভেবে এই পরিস্থিতিতেও ঘুরে বেড়াচ্ছেন তাদেরকে ‘সাহসী’ আখ্যায়িত করে করোনায় মৃতদের লাশ দাফনের কাজে যুক্ত হওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আশরাফুল আলম। তার স্ট্যাটাসটি সাড়া ফেলেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

যমুনা নিউজকে এমন স্ট্যাটাস দেয়ার কারণ জানিয়েছেন ইউএনও আশরাফুল আলম। তিনি বলেন, অনেকদিন ধরেই লোকজনকে সতর্ক করছিলাম, সচেতন করার চেষ্টা করছিলাম। এরপরও কিছু মানুষ আছে যে বুঝেও বুঝতে চাচ্ছেন না, বা ভাবছেন যে তাদের করোনা হবে না। করোনা হলে তাদের কোনো ক্ষতি হবে না। তাদেরকে একটু ধাক্কা দিয়ে বোঝানোর জন্য এমনটা বলেছি। আবার এরকম কেউ যদি সত্যিই থেকে থাকে, আমাদের যেহেতু একটা স্বেচ্ছাসেবক টিম করতে হবে এই সৎকারের জন্য, ভাবলাম যে এক কাজে দুই কাজ হবে। মানুষও আরেকটু সচেতন হবে আবার প্রকৃতই কেউ যদি স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করতে চায় তাকে আমাদের টিমে রাখতে পারবো। আমরা তাদেরকে প্রশিক্ষণ দিয়ে তৈরি করে রাখবো। যেন তাকে আমরা কাজে লাগাতে পারি। এই উদ্দেশ্যেই মূলত আমার স্ট্যাটসটি দেয়া।

এর আগে, রোববার ‘উপজেলা প্রশাসন সাটুরিয়া মানিকগঞ্জ’র ফেসবুক পেইজে ইউএনও আশরাফুল আলম লেখেন, “হ্যালো, আপনাকেই বলছি। আপনি যদি মনে করেন করোনার কোন অস্তিত্ব নেই এবং করোনাতে আপনার কিছুই হবে না কিম্বা সংক্রামক রোগের কোন অস্তিত্ব নেই তবে আপনাকেই খুঁজছি আমরা। উপজেলা প্রশাসন, সাটুরিয়া মানিকগঞ্জ উপজেলায় ভবিষ্যতে করোনায় আক্রান্ত লাশ দাফনের জন্য একটা টিম গঠন করছে। আপনার মত সাহসী এবং সচেতন মানুষকেই আমরা খুঁজছি এখন। আপনার আশেপাশে এমন কোন ব্যক্তি থাকলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করছি।”

এই স্ট্যাটাসের নিচে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের একটি বিজ্ঞপ্তি সংযুক্ত করা হয়েছে যেখানে করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মৃতদেহ সৎকারে এলাভিত্তিক স্বেচ্ছাসেবকদের সম্পৃক্ত করা ও তাদের প্রশিক্ষণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

এমন ব্যতিক্রমধর্মী আহবানের প্রশংসা করেছেন অনেকে। একে ‘সৃজনশীল’ বলে মন্তব্য করেছেন অনেক নেটিজেন। কেউ কেউ মন্তব্য করছেন, ‘এরপরও যদি মানুষ ঘরে থাকে!’ আবার কেউ কেউ স্বেচ্ছাসেবকের গুরুত্ব স্বীকার করে নিয়ে মন্তব্য করেছেন, ‘এমন পরিস্থিতি যেন না আসে।’









Leave a reply