বগুড়ায় জ্বর-শ্বাসকষ্ট নিয়ে মৃত ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত ছিলেন না: আইইডিসিআর

|

বগুড়া ব্যুরো:

বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলায় জ্বর-কাশি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন না। সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান-আইইডিসিআর থেকে মরদেহের নমুনা পরীক্ষার ফলাফল আসার পর সোমবার এই তথ্য জানিয়েছেন সিভিল সার্জন।

এদিকে, শনিবার ওই ব্যক্তির মরদেহ দাফনে বাধা দেয়ার ঘটনায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মেজবাউর রহমানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগ।

সিভিল সার্জন ডাক্তার গাওসুল আজিম চৌধুরী জানান, শনিবার সকালে জ্বর-কাশি-শ্বাসকষ্ট নিয়ে ওই ব্যক্তি মারা যাবার পর এলাকায় করোনা ভাইরাস আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়লে ওইদিনই মরদেহের নমুনা সংগ্রহ করে ঢাকায় আইইডিসিআরে পাঠানো হয়। পরীক্ষা শেষে সোমবার আইইডিসিআর জানিয়েছে, মৃত ব্যক্তির শরীরে করোনা ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায় নি।

শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আলমগীর কবীর জানান, ওই ব্যক্তির মৃত্যুর পর ওই বাড়িসহ পাশের যে ২০টি বাড়ি লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছিল, আইইডিসিআর থেকে নমুনা পরীক্ষার ফলাফল জানার পর সোমবার দুপুরে তা প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।

এদিকে, মৃত্যুর পর ওই এলাকায় মরদেহ দাফনের বাধা দেয়ার ঘটনায় উপজেলার ময়দানহাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মেজবাউর রহমানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। তিন দিন সময় বেঁধে দিয়ে সোমবার তাকে এই নোটিশ দেয়া হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজার রহমান মোস্তা জানান, ঘটনার দিন মেজবাউর রহমানের নেতৃত্বেই ওই ব্যক্তির মরদেহ দাফনে বাধা দেয়া হয়। এতে দলের ভাবমূর্তি চরমভাবে ক্ষুণ্ন হয়েছে। তাই তাকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে। তার জবাব পাবার পর পরবর্তী দলীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে বলেও জানান এই আওয়ামী লীগ নেতা।

মরদেহের নমুনা সংগ্রহের পর শনিবার বিকেল থেকে উপজেলা প্রশাসন ওই ব্যক্তির মরদেহ দাফনের প্রক্রিয়া শুরু করলে কয়েক দফা তাতে বাধা দেন স্থানীরা। শেষ পর্যন্ত সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে সরকারি খাস জায়গায় ওই ব্যক্তিকে দাফন করে উপজেলা প্রশাসন ও শিবগঞ্জ থানা পুলিশ।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply