করোনার অবসাদে জার্মান মন্ত্রীর আত্মহত্যা

|

করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে অবসাদগ্রস্ত ছিলেন তিনি। রেললাইনের উপর থেকে উদ্ধার হলো তার ছিন্নভিন্ন দেহ। তিনি জার্মানির মন্ত্রী থমাস শেফার। করোনা পরিস্থিতির হতাশা থেকেই থমাস আত্মঘাতী হয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। জার্মানির হেসে প্রদেশের অর্থমন্ত্রী ছিলেন তিনি।

শনিবার ফ্রাঙ্কফুর্ট এবং মাইনজের মধ্যবর্তী হোচাইম শহরে হাইস্পিড ট্রেন লাইনের উপর থেকে শেফারের ছিন্নভিন্ন দেহটি উদ্ধার হয়। প্যারামেডিকসের একটি দল তার মরদেহ উদ্ধার করে। গোটা দেহ ছিন্নভিন্ন হয়ে যাওয়ায় প্রথমে তাকে শনাক্ত করা যায়নি।

চপ্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে, চলন্ত ট্রেনের সামনে ঝাঁপ দিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমসূত্রে জানা গিয়েছে, করোনার প্রকোপ থেকে জার্মানির অর্থনীতিকে কীভাবে বাঁচাবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় ভুগছিলেন ৫৪ বছরের শেফার। করোনা ঠেকাতে আর্থিক সহায়তা নিয়ে সম্প্রতি বিবৃতিও দিতে দেখা যায় তাকে।

শেফারের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন হেসে প্রদেশের প্রধান ভলকার বুফিয়ের। তিনি বলেন, এখনও বিশ্বাস করতে পারছি না। মর্মান্তিক ঘটনা এটি।

দীর্ঘ ১০ বছর ধরে হেসের অর্থমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলেছেন শেফার। কীভাবে করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা করা যায়, তা নিয়ে দিন-রাত তিনি কাজ করছিলেন বলেও জানান বুফিয়ের। বলেন, দুশ্চিন্তায় ভুগছিলেন উনি। এই কঠিন সময়ে তার মতো একজনকে খুব দরকার ছিল আমাদের। অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেলো।

জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের সেন্টার রাইট ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটস (সিডিইউ) পার্টির সদস্য ছিলেন শেফার। হেসে প্রদেশের আগামীদিনের প্রধান ভাবা হচ্ছিল তাকে।









Leave a reply