আখাউড়া স্থলবন্দর অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ

|

আখাউড়া প্রতিনিধি:

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া স্থলবন্দর অনির্দিষ্টিকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ফলে এ বন্দর দিয়ে সব ধরনের পণ্য আমদানি রফতানি বাণিজ্য কার্যক্রম এবং পাসপোর্টধারী যাত্রী পারাপার এখন থেকে বন্ধ থাকবে।

ভারতজুড়ে লকডাউন থাকায় পণ্য না নেওয়ার কথা জানিয়েছেন ত্রিপুরা রাজ্যের ব্যবসায়ীরা। বৃহস্পতিবার তৃতীয় দিনের মতো সকাল থেকে ভারতে রফতানির অপেক্ষায় অর্ধশতাধিক পণ্যবাহী ট্রাক আখাউড়া স্থলবন্দরে আটকে আছে। মঙ্গলবার ও বুধবার এ স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকায় ট্রাকভর্তি পণ্য নিয়ে ফিরে গেছে অন্তত শতাধিক ট্রাক। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন ব্যবসায়ী, ট্রাকচালক ও হেলপাররা।

আখাউড়া স্থলবন্দর আমদানি রফতানি অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, করোনাভাইরাসের কারণে ভারতজুড়ে ২১ দিনের লকডাউন চলছে। ফলে সেখানকার ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশ থেকে আপাতত পণ্য নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন।

বিষয়টি তারা আগরতলা কাস্টমস ও বাংলাদেশি ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দদের মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। পরবর্তীতে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে অনির্দিষ্টকালের জন্য আখাউড়া বন্দরে দিয়ে আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকবে।

আখাউড়া বন্দরে আটকে পড়া পণ্যবোঝাই ট্রাকগুলো ওয়্যারহাউজে বিনা চার্জে রাখার জন্য ইতিমধ্যে স্থলবন্দর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে চিঠি পাঠানো হয়েছে বলেও তিনি জানান।

আখাউড়া স্থলবন্দর শুল্ক কর্মকর্তা হারুনুর রশীদ বলেন, আমদানি রফতানি বাণিজ্য বন্ধ থাকলেও বন্দরের অন্যান্য কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। তবে পূর্বঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে পণ্য নেওয়া বন্ধ থাকায় রফতানিমুখী অর্ধশতাধিক পণ্যবোঝাই ট্রাক বন্দরে আটকে পড়েছে।

আখাউড়া ইমিগ্রেশন ইনচার্জ আবদুল হামিদ বলেন, ভারত জুড়ে লকডাউন থাকায় দু’দেশের বাণিজ্য বন্ধ রয়েছে। ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট সীমান্ত পথে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ সতর্কতায় কূটনৈতিক, অফিসিয়াল, জাতিসংঘ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার ভিসাধারী ছাড়া অন্য কোনো ভিসার যাত্রী আখাউড়া-আগরতলা চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন সীমান্ত পথে পারাপার বন্ধ রয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply