করোনার নতুন কেন্দ্র যুক্তরাষ্ট্র?

|

চীনের উহান থেকে উৎপত্তি হওয়া করোনাভাইরাস তছনছ করে দিয়েছে গোটা বিশ্বের হিসেবনিকেশ। এরপর দক্ষিণ কোরিয়া বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি ঘটাতে না পারলেও ইউরোপের ইতালি, স্পেনে ব্যাপক প্রাণহানি ঘটিয়েছে ভাইরাসটি। এবার করোনাভাইরাসের কেন্দ্র হয়ে উঠছে যুক্তরাষ্ট্র? আক্রান্ত ও মৃতের পরিসংখ্যান বিচার করে এমন সম্ভাবনার কথাই জানাচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা- ডব্লিউএইচও। খবর দ্য গার্ডিয়ান।

গত ২৪ ঘণ্টায় ইউরোপ-আমেরিকায় নতুন আক্রান্তের মধ্যে ৪০ শতাংশই যুক্তরাষ্ট্রের। এই পরিসংখ্যান এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন ট্রাম্প প্রশাসনও।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণের হার ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন জেনেভায় ডব্লিউএইচও’র মুখপাত্র মার্গারেট হ্যারিস। তিনি বলেন, বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৮৫ শতাংশ নতুন আক্রান্তই ইউরোপ ও আমেরিকায়। তার মধ্যে শুধু যুক্তরাষ্ট্রেই আক্রান্ত ৪০ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রে ব্যাপক হারে সংক্রমণ বাড়ছে। তাই ভরকেন্দ্র হয়ে ওঠার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে দেশটির।

এ মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৪ হাজার ৮৬৭। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৭৮২ জনের। চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৩৭৮ জন। বেশি আক্রান্ত এলাকাগুলো হচ্ছে নিউইয়র্ক, নিউজার্সি, ক্যালিফোর্নিয়া ও ওয়াশিংটন।

মার্কিন স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা ডেবোরাহ বার্কস বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটি, নিউ জার্সি এবং লং আইল্যান্ড অঞ্চলে প্রতি হাজারে একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত যা অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় পাঁচ গুণ বেশি।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনীতি করোনাভাইরাসের কারণে কার্যত স্থবির হয়ে গেছে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আবার সবকিছু চালু হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন তিনি।
তার মতে,, বিগত সপ্তাহগুলোতে আমরা ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করে যে শিক্ষা অর্জন করেছি, তা যুক্তরাষ্ট্রকে আরও সমৃদ্ধ ও শক্তিশালী করতে সহযোগিতা করবে।









Leave a reply