শিবচরে কোয়ারেন্টাইনে থাকাদের ঘরে ঘরে পৌছে দেয়া হবে খাবার ও ওষুধ

|

স্টাফ রিপোর্টার, মাদারীপুর:

করোনাভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে মাদারীপুরের শিবচরের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রবাসী ও নিম্ন আয়ের মানুষের ঘরে ঘরে খাবার,ওষুধসহ বিভিন্ন উপকরণ পৌছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর নির্দেশে রোববার সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদে অনুষ্ঠিত জরুরী সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এদিকে কনটেইনমেন্ট এ জনগণের চলাচল সীমিত করার ৩য় দিনেও নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দোকান ছাড়া বন্ধ রয়েছে উপজেলার বেশিরভাগ বাজার। চিহিৃত এলাকা ছাড়াও উপজেলাজুড়ে প্রশাসন, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও জনপ্রতিনিধিরা টহল দিচ্ছেন।

বাজারগুলোও স্বতস্ফুর্তভাবে জনশূন্য হয়ে পড়েছে। এদিন হাসপাতালে হাঁচি, কাশি রুগীদের জন্য আলাদা ফ্লু কর্নার খোলা হয়েছে। প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন হিসেবে একটি স্কুলকে নির্ধারন করা হয়েছে।

জানা যায়, রোববার সন্ধ্যায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে চীফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরীর নির্দেশে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামানের সভাপতিত্বে জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সোমবার সকাল থেকেই চিহিৃত ৪ এলাকার হোম কোয়ারেন্টাইনে অর্ন্তভূক্ত প্রবাসী ও নিম্ন আয়ের মানুষের ঘরে ঘরে প্রশাসন ও আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে খাবার পৌছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। চাল, ডাল, তেল, আটা, লবন, সাবান, চিনি, আলু, ওষুধ প্যারাসিটামল, ওরস্যালাইনসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য এ তালিকায় রয়েছে।

প্রথম পর্যায়ে পর্যায়ক্রমে ৮ শত পরিবারের মাঝে এ সহায়তা দেয়া হবে। এছাড়াও হোম কোয়ারেন্টাইন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষণা দেয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, চীফ হুইপ স্যারের নির্দেশক্রমে জরুরী সভা করে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা প্রবাসী ও স্বল্প আয়ের ব্যবসায়ীদের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্যদ্রব্য পৌছে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মূলত চীফ হুইপ স্যারের আগ্রহেই এই কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ শশাঙ্ক ঘোষ বলেন, হাসপাতালে হাঁচি, কাশি রুগীদের জন্য আলাদা ফ্লু কর্নার খোলা হয়েছে। হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে ৯২ জন। সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, এ পর্যন্ত মোট ৫ শত ৫৯ জন কোয়ারেন্টাইনে ছিল। রিলিজ হয়েছে ২ শত ৬১ জন। আইসোলেশনে রয়েছে ৩ জন।









Leave a reply