করোনা সতর্কতায় ২০ দিনের জন্য বন্ধ দৌলতদিয়া যৌনপল্লী

|

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে শুক্রবার (২০ মার্চ) থেকে আগামী ২০ দিনের জন্য সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে রাজবাড়ীর দৌলদিয়ায় অবস্থিত দেশের বৃহত্তম যৌনপল্লী।

এসময় কোন খদ্দের এখানে আসতে পারবেনা বলেও জানিয়েছে স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে রক্ষা করতে সরকার সব ধরনের জনসমাগম বন্ধ ঘোষণা করেছে। যেহেতু দৌলতদিয়া যৌনপল্লী অনেক বড় একটি যৌনপল্লী। এ পল্লীতে বিভিন্ন স্থান থেকে খদ্দের আসা-যাওয়া করে। যে কারণে করোনা ভাইরাসের ঝুঁকিতে রয়েছে দৌলতদিয়া যৌনপল্লীর যৌনকর্মীরা। যৌনকর্মীদের খাদ্যের ব্যবস্থা না থাকায় এই কয়দিন যৌনপল্লী বন্ধ করতে পারিনি। কিন্তু এখন চাল ও নগদ টাকা বরাদ্দ পাওয়ায় শুক্রবার (২০ মার্চ) সন্ধ্যা ৬ টা থেকে সাধারণ মানুষের প্রবেশাধিকার বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে আগামী ৯ এপ্রিল পর্যন্ত। ৯ এপ্রিলের পর পরিবেশ বুঝে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

রাজবাড়ীর ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ আশেক হাসান জানান, যৌনকর্মীদের খাদ্য নিরাপত্তার জন্য আমরা ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারের কাছে একটি পত্র দেই। সেখান থেকে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ে বিষয়টি অবগত করলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বিশেষ বরাদ্দ দিয়েছে। যতদিন যৌনপল্লী বন্ধ থাকবে সেই কয়দিনের জন্য প্রত্যেক যৌনকর্মীকে ৩০ কেজি চাল ও নগদ ২ হাজার টাকা করে দেয়া হবে।

দৌলতদিয়া অসহায় নারী ঐক্য সংগঠন এর সভানেত্রী ঝুমুর বেগম জানান,পুলিশ প্রশাসনের এই পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছেন দৌলতদিয়ার যৌনকর্মীসহ সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, দেশের এই বৃহৎ যৌনপল্লীতে প্রতিদিন গড়ে প্রায় সাড়ে তিন হাজার করে মানুষ অবাধে চলাচল করে। এখানে প্রায় সাড়ে ৫ হাজার যৌনকর্মী ও তাদের পরিবারের সদস্যরা রয়েছেন।পল্লীতে প্রায় ১৩০০ যৌনকর্মী ভোটার রয়েছেন।

পুলিশের হিসাব অনুযায়ী এই পল্লীতে ১৬০০জনের মতো যৌনকর্মী রয়েছেন। তাদের ছেলে মেয়ে এবং পল্লীতে ঘরের মালিক ও দালালসহ আরও ৪০০ জনের মতো আছেন।









Leave a reply