পাবনায় বেড়ে চলছে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া ব্যক্তির সংখ্যা

|

করোনাভাইরাস আতংকের মধ্যে পাবনায় হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া ব্যক্তির সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। শুক্রবার (২০ মার্চ) সকাল পর্যন্ত মাত্র ২৪ ঘণ্টায় জেলার আটটি উপজেলার মোট ৩২৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে বলে স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছে। এ নিয়ে পাবনায় নয়টি উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া ব্যক্তির সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩৯৯ জনে।

শুক্রবার দুপুরে পাবনার সিভিল সার্জন ডাঃ মেহেদী ইকবাল জানান, ২৪ ঘণ্টায় জেলার ৩২৯ ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে শুধুমাত্র ঈশ্বরদী উপজেলাতেই নেয়া হয়েছে ২৭৯ জনকে।

সিভিল সার্জন আরও জানান, ঈশ্বরদী উপজেলায় হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া ২৭৯ জনের মধ্যে অধিকাংশই বিদেশী নাগরিক। তারা রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প, ঈশ্বরদী ইপিজেড সহ বিভিন্ন স্থানে কর্মরত। অন্যান্য উপজেলার মধ্যে সদর উপজেলার ১৭, আটঘরিয়া উপজেলায় ৭, বেড়া উপজেলায় ৭, চাটমোহর উপজেলায় ৪. ভাঙ্গুড়া উপজেলায় ২, ফরিদপুরের ৭ এবং সুজানগরে ৮ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে নেয়া হয়েছে।

এদিকে করোনা পরিস্থিতির কারণে পাবনা জেলার সর্বত্র সকল ধরনের সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান, জমায়েত, সভা-সমাবেশ, সেমিনার নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

পাবনার জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ জানান, পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত সকল কমিউনিটি সেন্টার, কোচিং সেন্টার বন্ধ ও সভা সমাবেশ ও ধর্মীয় অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুর থেকে পাবনা শহর সহ বিভিন্ন এলাকায় এ সংক্রান্ত মাইকিং করা হয়েছে।









Leave a reply