কক্সবাজারে পর্যটক সমাগমে নিষেধাজ্ঞা

|

কক্সবাজার প্রতিনিধি:
কক্সবাজারের হোটলে-মোটেলসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে জনসমাবেশ, বিনোদন অনুষ্ঠান পরিবেশনসহ সবধরনের জনাসমাগমের আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করা হয়েছে।

বুধবার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি আগত পর্যটকদের দূরত্ব বজায় রেখে ভ্রমণের অনুরোধ করা হয়েছে। এ নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়নে মাঠে নেমেছে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন ও ট্যুরিস্ট পুলিশ।

গত কয়েকদিনে দেশে করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও কক্সবাজারের হোটেল মোটেল ও সৈকত এলাকায় পর্যটকদের আনাগোনা অব্যাহত ছিল। ফলে সৈকতকেন্দ্রিক আগত পর্যটকদের আগমন ঠেকাতে বুধবার থেকে মাঠে নামে জেলা প্রশাসন। বুধবার বিকালে সৈকতে মাইকিং করে আগত পর্যটকদের চলে যেতে অনুরোধ করে জেলা প্রশাসন ও ট্যুরিস্ট পুলিশ।

পাশাপাশি করোনা মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে হোটেল মোটেল জোন সৈকত এলাকায় প্রচার পত্র বিলি করে জেলা প্রশাসন। এ সময় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মাসুদুর রহমান মোল্লার নেতৃত্বে সমুদ্রসৈকতের সুগন্ধা, কলাতলীর ডলফিন মোড়ে ছোট-বড় যানবাহনসহ বিভিন্ন স্থানে সচেতনতামূলক প্রচারপত্র বিতরণ করা হয়।

এদিকে বুধবার সকালেও সৈকত এলাকা ছিল পর্যটকে ভরপুর। বিকালে জেলা প্রশাসন ও ট্যুরিস্ট পুলিশের পক্ষ থেকে সাইরেন বাজিয়ে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে পর্যটকদের সর্তক করা হয়। এসময় সৈকত এলাকা ফাঁকা হয়ে যায়। সৈকতের কিটকট ব্যবসায়ীরা তাদের চেয়ার গুটিয়ে ফেলতে শুরু করে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী কক্সবাজারে ৪ জন বিদেশ ফেরত ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এছাড়া বুধবার জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে বিদেশ ফেরত তিন প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টানের নির্দেশ অমান্য করায় ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply