বাগেরহাটে বিদেশফেরত ৩৩শ জনের সন্ধানে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ

|

বাগেরহাট প্রতিনিধি:
করোনা আতংক শুরু হওয়ার পর বাগেরহাট জেলার ৩হাজার ৩শ জন প্রবাসীর আগমন ঘটলেও বুধবার সকাল পর্যন্ত সুনির্দিষ্ট তথ্য ছিলো না কারও কাছে।

জেলা পুলিশের দেয়া তথ্যমতে ৩হাজার ৩শ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠাতে জেলা জুড়ে তাদের তথ্য অনুসন্ধান করছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। তাদের তথ্যমতে বর্তমানে এ জেলায় কোয়ারেন্টাইনে রাখা ৩০প্রবাসীর মধ্যে ৩জনের ১৪দিনের কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষে তারা সুস্থ্য রয়েছেন।

এদিকে শরণখোলায় উপজেলা সরকারী হাসপাতালের আইসোলেশন সেন্টারে রাখা আ. আউয়াল হাওলাদার (৬৪) নামের এক রোগীর শরীর থেকে বুধবার দুপুরে নমুনা সংগ্রহ করেছে আইইডিসিআর হতে আসা টিমের সদস্যরা।

বাগেরহাটে আজ সকাল পর্যন্ত নতুন করে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২৪ প্রবাসীর মধ্যে একজন ইটালী, একজন জার্মানী, তিনজন সিঙ্গাপুর ও ১৯ জন ভারত থেকে দেশে এসেছেন। বাগেরহাট জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ পুলিশের বরাত দিয়ে এ তথ্য নিশ্চিত করে।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ আরও জানায়, করোনা আতংকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা এতো বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাগেরহাটে নিজ-নিজ বাড়ীতে এসেছে তা আমাদের জানা ছিলো না।

বুধবার বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়ের মাধ্যমে ইমিগ্রেশন বিভাগের এই তালিকা পাওয়া যায়। তালিকা ধরে-ধরে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের পাশাপাশি স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, পুলিশ ও প্রশাসনের সহায়তায় এই বিপুল সংখ্যক প্রবাসীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার কাজ চলছে। বৃহস্পতিবার সকালের মধ্যে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো সম্ভব হবে বলেও জানা যায়।

এ জেলায় কোয়ারেন্টাইনে রাখা ৩০ প্রবাসীর মধ্যে ইতিমধ্যে ৩ জনের মেয়াদ শেষে তারা সুস্থ্য রয়েছেন। বুধবার সকাল পর্যন্ত নতুন করে ২৪ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

জেলা পুলিশ সুপার আরও জানান, জেলা প্রশাসন, পুলিশ সুপার ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগের মধ্যে ভিডিও কনফারেন্সে কথা হয়েছে। ইতোমধ্যে ওই ৩ বিভাগ কাজ শুরু করেছে। সেখানের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে যত দ্রুত সম্ভব বিদেশ ফেরতদের হোম কোয়ারেন্টাইনে আনার চেষ্টা করা হচ্ছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply