করোনাভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে দেশে আইসোলেশনে আরও ১৬

|

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে আরও ১৬ জনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ হাজার ৩৪১ জনের পরীক্ষা করা হয়েছে।

বিশ্বে মহামারীর রূপ পাওয়া নভেল করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়েছে। এদিকে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে।

এমন তথ্য জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা বিভাগ (আইইডিসিআর)। বুধবার বিকালে এক সংবাদ সম্মেলনে বিভাগটির পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, বাংলাদেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়া মারা যাওয়া ব্যক্তি কিডনি ও হার্ট সমস্যায় ভুগছিলেন।

তিনি বলেন, এছাড়া নতুন চারজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। নতুন আক্রান্ত চারজনের একজন নারী ও তিনজন পুরুষ বলে তিনি জানিয়েছেন।

এই অধ্যাপক বলেন, যিনি মারা গেছেন, তার বয়স ৭০ বছরের ওপরে। তিনি হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ছিলেন।

‘তিনি নানা শারিরীক জটিলতায় ভুগছিলেন। তার কিডনি রোগ, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস, ফুসফুসে সমস্যা এবং হার্টের অসুখ ছিল।’

হার্ট সমস্যার কারণে সম্প্রতি তার স্টেনটিং বা রিং পরানো হয় বলেও জানিয়েছেন সেব্রিনা।

গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়। তখন তিনজন করোনাভাইরাস আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার তথ্য জানায় আইইডিসিআর।

এরপর ১৪ মার্চ শনিবার রাতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরো দুজনের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার তথ্য জানান। এরপরে আরও তিনজনের করোনা শনাক্ত হওয়ার তথ্য জানায় আইইডিসিআর।

সবশেষ দুদিন আগে আরও দুজনের করোনা শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় সেব্রিনা ফ্লোরা।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ২৪ ঘণ্টায় ৪৯ হাজার ৩৪১ জনের পরীক্ষা হয়েছে। সন্দেহজনক ধরে আরো ১৬জনকে কোয়ারেন্টিনে নেয়া হয়েছে।









Leave a reply