শরীয়তপুরে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় ৩ জনকে অর্থদণ্ড

|

শরীয়তপুর প্রতিনিধি:

‘শরীয়তপুরে বিদেশ ফেরতদের অবাধ বিচরণ’ শিরোনামে মঙ্গলবার যমুনা টেলিভিশনে একটি সংবাদ প্রচার করা হয়। এরপর থেকে হোম কোয়ারেন্টাইন না মানায় শরীয়তপুরে ৩ জন প্রবাসীকে অর্থদণ্ড করা হয়েছে। এদের মধ্যে দুইজন ইতালি এবং একজন সৌদি আরব প্রবাসী।

নড়িয়া উপজেলার লোনসিং গ্রামের রবিন সরদারকে ৫০ হাজার টাকা এবং ওই উপজেলার একই গ্রামের সাগর মন্ডলকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেছে পৃথক দুটি ভ্রাম্যমাণ আদালত। এছাড়া সদর উপজেলার কানার বাজার এলাকার লিটন বেপারীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ইতালি প্রবাসী নড়িয়া উপজেলার রবিন সরদার হোম কোয়ারেন্টাইন না মেনে এলাকায় ঘোরাঘুরির সময় বিষয়টি নজরে আসে প্রশাসনের। সরকারের নির্দেশনা অমান্য করায় নড়িয়া উপজেলার সহকারী ভূমি কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তাকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেন।

একই দিন ১৪ মার্চ ইতালি থেকে আসা নড়িয়া উপজেলার গ্রামের সাগর মন্ডল সন্ধ্যায় সদর উপজেলার সদর উপজেলার প্রেম তলা এলাকায় ঘুরাঘুরি করছিলেন। সংবাদ পেয়ে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার মাধ্যমে তাকে ২৫ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়। এছাড়া সদর উপজেলার কানার বাজার এলাকার সৌদি প্রবাসী লিটন বেপারীকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সংক্রামক রোগ নিরোধ আইনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহাবুর রহমান শেখ এ দণ্ড দিয়েছেন।

গত ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৬ মার্চ পর্যন্ত বিভিন্ন দেশ থেকে শরীয়তপুরে ফিরেছেন এমন ২৫০ জন প্রবাসীর তথ্য পেয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। এদের মধ্যে ২২৩ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে নির্দেশ দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। গত কয়েকদিনে ২৭ জনের হোম কোয়ারেন্টাইন শেষ হয়েছে।

হোম কোয়ারেন্টাইন মানতে জেলা পুলিশের সদস্যরা মাঠে নেমেছে। জেলা প্রশাসন মাইকিং করছে। আর স্বাস্থ্য অধিদপ্তর প্রতি ইউনিয়নে তিন জন করে স্বাস্থ্য কর্মী নিযুক্ত করেছেন।
জেলা প্রশাসনের তথ্য অনুযায়ী শরীয়তপুরের দেড় লাখ মানুষ প্রবাসে থাকেন। যার ৮০ শতাংশ ইতালিতে থাকেন। যার মধ্যে নড়িয়ার বাসিন্দা রয়েছেন ৭০ শতাংশ।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply