করোনাভাইরাস: বাড়িভাড়াসহ নাগরিকদের সব দায়িত্ব নেবেন ট্রুডো

|

কর্মসংস্থান বীমার আওতায় পড়ে না এমন কানাডীয় নাগরিকদের পরিবারের ভরণপোষণ ও বাড়িভাড়া সহায়তায় জরুরি অর্থনৈতিক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করতে যাচ্ছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

মঙ্গলবার তার এই প্যাকেজ ঘোষণার কথা রয়েছে। গত সপ্তাহে আরও নমনীয় কর্মসংস্থান বীমার ঘোষণা দিয়েছে ওটোয়া। যাতে অপেক্ষার মাত্রা আরও কমিয়ে আনা হয়েছে। কিন্তু বহু কানাডীয় রয়েছেন, যারা অস্থায়ী চাকরি কিংবা বিভিন্ন শিল্প কারখানায় কাজ করেন, তারা এই কর্মসংস্থান বিমার আওতায় আসবেন না।

দ্য গ্লোব অ্যান্ড মেইল ও গার্ডিয়ানের খবরে এমন তথ্য জানা গেছে।

নিয়মিত কর্মসংস্থান সুবিধার যোগ্য না এমন কর্মীদের সাময়িক অর্থনৈতিক সুবিধার প্রস্তাব দেবে বলে জানিয়েছেন ট্রুডো। এমন এক সময় তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, যখন করোনাভাইরাসের প্রভাবে বহু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ও কর্মীরা ঘরে আবদ্ধ হয়ে পড়েছেন।

সাংবাদিকদের ট্রুডো বলেন, এখন আমরা নিশ্চিত করতে চাচ্ছি যে কর্মস্থলে যেতে পারছেন না এমন কানাডীয়রা যাতে তাদের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে ও ভাড়া পরিশোধ করতে পারেন।

মার্কিন নাগরিক বাদে অকানাডীয়দের জন্য সীমান্ত বন্ধ ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী বলেন, নাগরিকদের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা বিবেচনা করে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, বেশ কয়েকদিন ধরে বিশ্বজুড়ে কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ছে। কানাডাও সেই প্রভাবের বাইরে না।

গত সপ্তাহে তার স্ত্রী সোফিয়াও করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। সেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে থাকা ট্রুডো নিজ বাড়ির বাইরে থেকে সাংবাদিকদের বলেন, ভাইরাস বিস্তারের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরাও জোড়ালো পদক্ষেপ নেব। যতটা সম্ভব সব কানাডীয় নাগরিক বাড়িতে থাকবেন।

কানাডায় এখন পর্যন্ত ৩৭৭ জন করোনাভাইরাকে আক্রান্ত হয়েছেন। যেটা শুক্রবারের চেয়ে দ্বিগুণেরও বেশি। বাবা-মা বাড়িতে যাতে সন্তানদের যত্ন নিতে পারেন, ট্রুডো সরকারের পরিকল্পনায় তাও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply