নারীকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দুই জনের যাবজ্জীবন

|

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি
টাঙ্গাইলে এক নারীকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় দুই জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও এক লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক বেগম খালেদা ইয়াসমিন আসামিদের উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন।
দণ্ডিত ব্যক্তিরা হলো- কালিহাতী উপজেলার মৃত রহিজ উদ্দিনের ছেলে নূর মোহাম্মদ ওরফে নুরু (৬৫) ও এই ধর্ষণ ও হত্যায় সহায়তাকারী বাসাইল উপজেলার নাজির হোসেনের স্ত্রী মোছা: নাজমা (৩২)।

টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিশেষ পিপি নাছিমুল আক্তার জনান, আশা কালিহাতী উপজেলার ফৈলার ঘোনা গ্রামের মো: আ: আলীম এর কন্যা। টাঙ্গাইল শহরের এনায়েত পুরে তার নানার বাড়িতে বসবাস করতো। তাকে ১০/১২ দিন খুঁজে না পাওয়ায় তার পিতা মো: আ: আলীম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামি করে কালিহাতী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কালিহাতী থানার এসআই মো: নাসির উদ্দিন মোবাইল ট্রেকিং এর মাধ্যমে মোছা: নাজমাকে গ্রেফতার করে। পরে সে আদালতে স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দী প্রদান করে। তার স্বীকারোক্তিমুলক জবানবন্দীর প্রেক্ষিতে নূর মোহাম্মদ ওরফে নুরুকে গ্রেফতার করে।

পরে তারা জনান, ২০১৬ সালের ১৮ অক্টোবর আশাকে নিয়ে কালিহাতী উপজেলার ধানগড়া গ্রামের মান্দাই বিলের কাছে যায়। পরে নূর মোহাম্মদ আশাকে দুই বার ধর্ষণ করে নাজমার সহায়তায় বিলের পানিতে চুবিয়ে ও শ্বাসরোধ করে তাকে হত্যা করে।

পুলিশ তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩১ মে আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দায়ের করেন।
মামলায় সর্বমোট ১১জন স্বাক্ষী আদালতে স্বাক্ষ্য প্রদান করেন।









Leave a reply