উহানে সব অস্থায়ী হাসপাতাল বন্ধ করলো চীন

|

নতুন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা হ্রাস পাওয়ায় করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবের উৎসস্থল হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানের সব অস্থায়ী হাসপাতাল বন্ধ করে দিয়েছে চীন।

মঙ্গলবার সাংহাইয়ের স্থানীয় সরকারের নিউজ ওয়েবসাইট ‘পেপার’ তাদের দাপ্তরিক টুইটার পেইজে এ খবর দিয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে।

সিনহুয়া নেট জানিয়েছে, মৃদু লক্ষণে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা ও তাদের সংক্রমণের উৎস থেকে দূরে রাখতে উহানের কর্তৃপক্ষ সরকারি জিমনেজিয়াম, প্রদর্শনী কেন্দ্র ও কয়েকটি ইনডোর স্টেডিয়ামকে অস্থায়ী হাসপাতালে পরিণত করেছিল।

১৬টি অস্থায়ী হাসপাতালে প্রায় ১২ হাজার রোগীকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।উহানের কভিড-১৯ কন্ট্রোল হেডকোয়ার্টারের ভাষ্য অনুযায়ী।

এক হাজার ৫৬৪ বেডের এই অস্থায়ী হাসপাতালটি সোমবার বিকালে বন্ধ করে দেওয়া হয়। স্থানীয় সময় বিকাল ৩টায় শেষ ব্যাচের ৩৪ জন রোগী হাসপাতালটি ছেড়ে যান। উহান আন্তর্জাতিক সম্মেলন ও প্রদর্শনী কেন্দ্রকে অস্থায়ী হাসপাতালে পরিণত করে জিয়ানহান হাসপাতাল নামকরণ করা হয়।

চীনের অন্যান্য প্রাদেশিক পর্যায়ের অঞ্চল থেকে আসা ২১টি মেডিকেল টিম ও উহানের ছয়টি হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মীরা এখানে কাজ করেন। ৫ ফেব্রুয়ারি রাত ৯টায় প্রথম রোগী আসার পর থেকে পরবর্তী ৩৪ দিনে অস্থায়ী এই হাসপাতালটিতে এক হাজার ৮৪৮ জন রোগী চিকিৎসা নেন।এদের মধ্যে ৫২১ জন রোগীকে অন্যান্য হাসপাতালে পাঠানো হয় এবং এক হাজার ৩২৭ জন রোগীকে ছাড়পত্র দিয়ে বাসায় পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

উহান ইউনিয়ন হাসপাতালের কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, অস্থায়ী হাসপাতালগুলোর মধ্যে এখানেই সবচেয়ে বেশি শয্যা ছিল, সবচেয়ে বেশি রোগী এখানে ভর্তি হয়েছে এবং সবগুলো অস্থায়ী হাসপাতালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি রোগী এখান থেকেই মুক্তি পেয়েছে।

সোমবার চীনে করোনাভাইরাসে নতুন করে মাত্র ১৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (এনএইচসি) ।ভাইরাসটির সংক্রমণজনিত রোগ কভিড-১৯ এ এদিন ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর ঘটনাগুলো সব হুবেই প্রদেশেই ঘটেছে।

সোমবার পর্যন্ত চীন করোনভাইরাসে মৃতের মোট সংখ্যা ৩১৩৬ জনে ও মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮০ হাজার ৭৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে।চীনের বাইরে বিশ্বের অপরাপর দেশ ও অঞ্চলে মৃতের সংখ্যা ৮৮২ জনে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ৩২ হাজার ২৫৫ জনে পৌঁছে গেছে।

মঙ্গলবার করোনাভাইরাস চীনসহ বিশ্বব্যাপী মোট মৃতের সংখ্যা ৪০১৮ জনে ও আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৩ হাজার ৯ জনে পৌঁছেছে।









Leave a reply