করোনা ভীতি নয়, চাই সচেতনতা

|

করোনা ভীতি নয়, চাই সচেতনতা। পরিচ্ছন্নতার অভ্যাসই নিরাপদ করতে পারে আমাদের জনপদকে। তবে এই অভ্যাস হতে হবে প্রতিটি স্তরে। নিজের প্রয়োজনেই সচেতন করতে হবে সমাজের সবাইকে। যদিও রাস্তাঘাট বা অফিস আদালতে জীবাণু সংক্রমনের সুযোগ রয়ে যায় আমাদের অগোচরেই।

ঢাকার সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত যান রিক্সা। জীবাণু থাকলে অসচেতনতায় তা ছড়িয়ে পড়তে পারে জনে জনে। সচেতনতার অংশ হিসেবে মাস্কে মুখ ঢেকে রাখলেও, হাত যে জীবানু বহন করতে পারে সেবিষয়ে উদাসীন অনেকে।

পথ চলতে মানুষের সহজাত অভ্যাসগুলোই জীবাণু ছড়াতে সহায়ক। কেননা অনেকেই পরিচ্ছন্নতা মেনে চলতে অভ্যস্ত নয়। তাইতো স্পর্শে স্পর্শে ছড়িয়ে পড়তে পারে জীবাণু।

গণপরিবহন এড়িয়ে চলার পরামর্শ থাকলেও কজনই বা এড়াতে পারেন? বেশিরভাগ মানুষের প্রধান বাহনই গণপরিবহন। তাই মনে শঙ্কা নিয়ে লোকাল বাসে চড়তে বাধ্য অনেকে।

বাইরের এত স্পর্শের পর অফিস কিংবা বাসায় যেতে ব্যবহৃত লিফটের বাটনে স্পর্শের মাধ্যমে ছড়াতে পারে জীবাণু। তাই বাসা বা অফিসে প্রবেশের সময় জীবানুনাশক ব্যবহার ঝুঁকি কমিয়ে দিতে পারে।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply