করোনায় আক্রান্ত হয়ে দায়িত্ব ছাড়লেন ইতালির সেনাপ্রধান

|

করোনাভাইরাসে দিশেহারা হয়ে পড়েছে ইউরোপের দেশ ইতালি। রোববার একদিনেই দেশটিতে প্রাণ হারিয়েছে রেকর্ড সংখ্যক ১৩৩ জন মানুষ। নতুনভাবে করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫শ’র কাছাকাছি। সবমিলিয়ে ইউরোপের দেশটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ৩৬৬ জনে; আক্রান্ত ৭ হাজারের বেশি। এদিকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন দেশটির সেনাপ্রধান সালভাতোর ফারিনাও। এ কারণে দায়িত্বও ছেড়ে দিয়েছেন তিনি। সূত্র: বিবিসি, আরটি।

রোববার দেশটির কর্মকর্তারা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বর্তমানে নিজ বাড়িতেই কোয়ারেন্টাইনে আছেন সেনাপ্রধান। তার বদলে এরই মধ্যে দেশটির নতুন সেনাপ্রধান হিসেবে জেনারেল ফেডেরিকো বোনাতোর নাম ঘোষণা করা হয়েছে বলে জানিয়েছে দ্যা নিউজ ইন্টারন্যাশনাল।

এক বিবৃতিতে ইতালির সেনাপ্রধান নিজের আক্রান্ত হওয়ার খবর দিয়ে বলেছেন, প্রাথমিকভাবে অসুস্থ বোধ করায় নিজ থেকেই তিনি আইসোলেশনে ছিলেন। পরে এ সংক্রান্ত পরীক্ষায় তার শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে।

এদিকে, এ ভাইরাস মোকাবিলায় দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, মিউজিয়াম, জিমনেশিয়াম, নাইট ক্লাবসহ বিভিন্ন ভেন্যু বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন ইতালির প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্টে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় লোম্বার্ডিসহ ১৪টি প্রদেশের অন্তত এক কোটি ৬০ লাখ মানুষকে বাধ্যতামূলকভাবে কোয়ারেন্টাইনে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী গুইসেপ কন্টে। রবিবার দেওয়া এ ঘোষণায় তিনি বলেন, আগামী ৩ এপ্রিল পর্যন্ত কেউ এই প্রদেশগুলো থেকে কেউ বেরুতে পারবে না। বাইরে থেকেও কেউ সেখানে প্রবেশ করতে পারবে না।

উত্তর ইতালিতে ইতোমধ্যেই ৫০ হাজারের মতো মানুষ কোয়ারেন্টাইনে রয়েছে। নতুন সিদ্ধান্তের ফলে বাণিজ্যিক কেন্দ্র মিলান এবং পর্যটকদের মূল আকর্ষণ ভেনিসের মতো শহরও কোয়ারেন্টাইনের আওতায় থাকবে। লোম্বার্ডির পুরো উত্তর অঞ্চল যেখানে এক কোটি লোকের বাস এবং ইতালির বাণিজ্যিক নগরী মিলান অবরুদ্ধ রাখা হবে।

গত ৩১ ডিসেম্বর চীনের উহানে প্রথমবারের মতো ধরা পড়ে করোনাভাইরাস। এ পর্যন্ত অন্তত ১০৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েছে। এরই মধ্যে আক্রান্ত হয়েছেন অন্তত ১ লাখ ২ হাজার ২৩৭ জন, মারা গেছেন ৩ হাজার ৪৯৭ জন।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply