প্রত্যাবাসনে হিন্দু রোহিঙ্গাদের ৩ দফা শর্ত

|

মিয়ানমারে প্রত্যাবাসনের জন্য ৩ দফা শর্ত জুড়ে দিয়েছে আশ্রয়ী হিন্দু রোহিঙ্গারা। বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের মধ্যকার চুক্তি অনুযায়ী ২৩ জানুয়ারির মধ্যে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর হওয়ার কথা। সেই অনুযায়ী প্রথম দফায় প্রায় ১ লাখ রোহিঙ্গার একটি তালিকা প্রস্তুত করেছে সরকার।

কর্মপদ্ধতি চূড়ান্ত হলেও এখনই রাখাইনে যেতে নারাজ হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। নিরাপত্তাসহ ৩ দফা ইস্যুতে কঠোর অবস্থান তাদের। নিরাপদ ও সম্মানজনক প্রত্যাবাসন না হলে ফিরতে চান না বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া হিন্দু রোহিঙ্গারা। তাদের পক্ষ থেকে তোলা এই তিন দফা দাবির মধ্যে থাকছে নিরাপত্তা, সম্পতি ফেরত এবং বৈধ নাগরিকত্ব।

প্রথম দফায় যাওয়ার অপেক্ষমান সেই তালিকায় আছেন সনাতন ধর্মাবলম্বী সাড়ে ৪শ’ রোহিঙ্গা। তবে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের নিরাপত্তাসহ তিন দফা দাবি উত্থাপনের পর নতুন করে জটিলতা দেখা দিয়েছে কক্সবাজারের রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরানোর প্রক্রিয়ায়।

পুরো প্রক্রিয়াটিকে অস্বচ্ছ ও কালক্ষেপণ বলছেন রোহিঙ্গা প্রতিরোধ ও প্রত্যাবাসন সংগ্রাম কমিটির প্রতিষ্ঠাতা মাহমুদুল হক চৌধুরী।

গেল বছরের ২৫ অগাস্ট মিয়ানমারে  জাতিগত নিধন শুরু হয়। এ ঘটনায় ৩৫৪টি রোহিঙ্গা গ্রাম পোড়ানোর তথ্য নিশ্চিত করেছে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ। সেসময় মুসলমানদের পাশাপাশি শত শত হিন্দু পরিবার মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

যমুন অনলাইন: এএস/টিএফ





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply