দিলু রোডে অগ্নিকাণ্ডে নিহতদের গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম

|

নরসিংদী প্রতিনিধি
রাজধানীর ইস্কাটনের দিলু রোডের বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় শিশু রুশদী ও তার মা জান্নাতুল ফেরদৌসীর পর মারা গেলেন রুশদীর বাবা শহিদুল কিরমানী রনিও। সোমবার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।
শরীরের ৪৩ ভাগ পোড়া নিয়ে শহীদুল কিরমানী রনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে স্থানান্তর করা হয় তাকে।

এর আগে রোববার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান রুশদীর মা জান্নাত। অগ্নিকাণ্ডে আরও দু’জনের সাথে ঘটনাস্থলেই পুড়ে মারা যায় চার বছরের ছোট্ট শিশু রুশদী।

শহিদুল কিরমানীর বাড়ি নরসিংদীর শিবপুর উপজেলায় ইটনা গ্রামে। পরপর তিনজনে মৃত্যুর খবরে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে আশেপাশের এলাকার লোকজন ও আত্মীয় স্বজনরা শহিদুল কিরমানীর বাড়িতে ভিড় করছেন। সোমবার বিকালে শহিদুল কেরমানী রনির লাশ গ্রামের বাড়িতে পৌঁছলে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।

বাবর একমাত্র ছেলে শহিদুল কেরমানী, ছেলের বৌ জান্নাতুল ফেরদৌসী ও নাতি রুশদীকে হারিয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে পরছেন বাবা এ কে এম শহিদুল্লাহ।

বিকালে ইটনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে জানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে রুশদী ও জান্নাতুল ফেরদৌসীর কবরের পাশে শহিদুল কিরমানীকে দাফন করা হয়। গতকাল একই মাঠে মা ও মেয়ের জানাজা নামাজ অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার ভোর রাতে রাজধানীর ইস্কাটনে দিলু রোডের একটি পাঁচতলা ভবনের গ্যারেজে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় জান্নাতুল ও রুশদীর চার বছরের সন্তান রুশদীসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন







Leave a reply