স্বামীসহ ১৫ দিনের রিমান্ডে পাপিয়া

|

অস্ত্র ও মাদকসহ তিন মামলায় যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়া ও স্বামীকে ১৫ দিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। দুপুরে মহানগর হাকিম আদালত তাদের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। পাপিয়ার দুই সহযোগীরও হয়েছে ৫ দিন করে রিমান্ড। এছাড়া জাল টাকার মামলায় পাপিয়া ও তার স্বামীর দুই সহযোগীর পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। দুই আসামি হলেন সাব্বির খন্দকার ও শেখ তায়্যিবা।

সোমবার নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিস্কৃত নেত্রী পাপিয়াকে আদালতে আনা হবে এমন খবরে আদালত পাড়ায় ভিড় করেন উৎসুক মানুষ। বেশ কিছু সময় গারদে রাখার পর বিকালে স্বামী ও দুই সহযোগিসহ পাপিয়া আদালতে হাজির করে পুলিশ। তিন মামলায় ১০ দিন করে রিমান্ড চান তদন্ত কর্মকর্তা। পরে, অস্ত্র ও মাদকসহ ৩টি মামলায় পাপিয়া ও তার স্বামীর ১৫ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমান ও মোহাম্মদ জসীম।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী তাপস কুমার পাল আদালতে জানান, আসামিদের কাছ থেকে জাল টাকা, অবৈধ অস্ত্র ও মাদক পাওয়া গেছে। আসামিদের বিরুদ্ধে নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার সুনির্দিষ্ট অভিযোগে মামলা হয়েছে। এসব ঘটনার রহস্য উদ্‌ঘাটনের জন্য আসামিদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি।

অন্যদিকে, আসামিপক্ষের আইনজীবী ইল তুৎ মিশ অভিযোগ করেন, গ্রেফতারের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে আদালতে আসামি হাজির করার নির্দেশনা মানেনি থানা পুলিশ।

গত শনিবার রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকা থেকে পাপিয়াকে স্বামী ও সহযোগিসহ গ্রেফতার করে র‍্যাব। পরে, জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্যের সূত্র ধরে গতকাল রোববার অভিযান চালায় র‍্যাব। একটি পাঁচ তারকা হোটেলে বুকিং দেওয়া বিলাসবহুল প্রেসিডেনশিয়াল স্যুট রুম এবং ইন্দিরা রোডের ফ্ল্যাট থেকে র‍্যাব ১টি বিদেশি পিস্তল, ২টি ম্যাগাজিন, পিস্তলের ২০টি গুলি, ৫ বোতল দামি বিদেশি মদ ও ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, ৫টি পাসপোর্ট, ৩টি চেক, কিছু বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা ও এটিএম কার্ড উদ্ধার করে। তাদের বিরুদ্ধে দেহ ব্যবসা ও ব্ল্যাকমেইল করে অর্থ আদায়সহ নানা অনৈতিক কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

এদিকে, গ্রেফতারের পর পাপিয়াকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করে আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুব মহিলা লীগ। সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়াকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হলো।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply