আরব বিশ্বের প্রথম পরমাণু চুল্লি তৈরি করছে আমিরাত

|

আরব দেশগুলোর মধ্যে প্রথম দেশ হিসেবে পরমাণু চুল্লি তৈরির লাইসেন্স ইস্যু করেছে সংযুক্ত আরব আমিরাত। আরব বিশ্বের প্রথম পরমাণু শক্তিকেন্দ্র বারাকা নিউক্লিয়ার পাওয়ার প্লান্টে ওই চুল্লি নির্মাণ করা হবে। সোমবার আরব আমিরাত চুল্লি নির্মাণের লাইসেন্স অনুমোদন করেছে। একে পরমাণু শক্তির ক্ষেত্রে ‘নতুন অধ্যায়’ হিসেবে দেখছে দেশটি। এএফপি বলছে, আরব আমিরাতে প্রচুর জ্বালানি মজুদ থাকলেও ১ কোটি জনসংখ্যার দেশটি বিকল্প জ্বালানি খাতে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে।

আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স এক টুইট বার্তায় বলেন, ‘বারাকা শক্তিকেন্দ্রের জন্য প্রথম পরমাণু চুল্লি নির্মাণের অনুমোদনের মাধ্যমে শান্তিপূর্ণ পরমাণু শক্তি উন্নয়নের পথে আমাদের যাত্রার এক নতুন অধ্যায় শুরু হল। আমাদের প্রয়োজনীয়তা ও আমাদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে আগামী ৫০ বছরের জন্য আমরা তৈরি হচ্ছি।’

আরব দেশগুলো বর্তমানে পারমাণবিক জ্বালানি শক্তিতে সমৃদ্ধ হওয়ার নীতি গ্রহণ করেছে। সেই লক্ষ্যে অন্তত চারটি পরমাণু চুল্লি তৈরির পরিকল্পনা ঘোষণা করেছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত। ২০১৯ সালে ওই বারাকা পরমাণু শক্তিকেন্দ্র নির্মাণ কাজ শুরু হয়। আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থার (আইএইএ) আরব আমিরাতের প্রতিনিধি হামাদ আল-কাবি বলেন, বারাকা পরমাণু শক্তিকেন্দ্রের চারটির মধ্যে একটি চুল্লি নির্মাণে জাতীয় পরমাণু রেগুলেটর সবুজ সংকেত দিয়েছে। আবুধাবির দক্ষিণে উপসাগরীয় উপকূলে নির্মিতব্য এ পরমাণু কেন্দ্রটি শিগগিরই চালু হবে।









Leave a reply