বাসদ (মাকর্সবাদী) থেকে ১৬ নেতাকে বহিষ্কারের প্রতিবাদ শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তীর

|

বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ কয়েকদফা ভাঙার পর এবার অস্থিরতা দেখা দিয়েছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ (মার্কসবাদী)’তেও। সম্প্রতি দলের ১৬ নেতাকে বহিষ্কার করেছেন সাধারণ সম্পাদক মবিনুল হায়দার চৌধুরী। আর এর প্রতিবাদ জানিয়েছেন অন্যতম শীর্ষ নেতা শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী।

সোমবার পাঠানো এক বিবৃতিতে বাসদ (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় কার্য পরিচালনা কমিটির সদস্য শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তী দলের কেন্দ্রীয় নির্ধারিত সদস্য ফোরামের ১৬ জন নেতাকে দল থেকে বহিষ্কারের প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

সাইফুজ্জামান সাকন প্রেরিত বিবৃতিতে শু চক্রবর্ত্তী বলেন, একটি বিপ্লবী দল গড়ে তোলার আকাঙ্ক্ষা ও অঙ্গীকার ব্যক্ত করে ২০১৩ সালে বাসদ (মার্কসবাদী) গড়ে ওঠেছিলো। কিন্তু, মার্কসবাদ-লেনিনবাদ ও শিবদাস ঘোষের চিন্তাধারার ভিত্তিতে দল গড়ে তোলার ঘোষিত নীতি অনুসরণ না করে দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড মুবিনুল হায়দার চৌধুরী ও তার অনুসারীদের আদর্শ-পরিপন্থী কর্মকাণ্ড দলকে গভীর সংকটের মুখে ঠেলে দেয়। এ পরিস্থিতিতে ১৬ জন নেতা বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটি বিলুপ্ত করে অতীত সংগ্রামের পর্যালোচনা ও মূল্যায়নের ভিত্তিতে নতুন পার্টি-প্রক্রিয়া শুরু করার জন্যে আহ্বান জানিয়েছিলেন। কিন্তু, তাদের আন্তরিক ও যৌক্তিক আহ্বান বিবেচনায় না নিয়ে তাদের উপলব্ধিজাত মতামতকে দলবিরোধী তৎপরতা হিসেবে চিহ্নিত করা হয় এবং দলের অভ্যন্তরে মতাদর্শিক সংগ্রাম পরিচালনার সুযোগ রুদ্ধ করে দিয়ে সম্পূর্ণ স্বৈরতান্ত্রিক পন্থায় এ ১৬ জন নেতাকে বহিষ্কার করা হয়।

এ বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাখ্যান করে দল গড়ে তোলার লক্ষ্যে ১৬ নেতার উদ্যোগের সাথে একাত্মতা ঘোষণা করেন বাসদ (মার্কসবাদী)’র এই নেতা।

উল্লেখ্য, ভারতের বিপ্লবী রাজনীতির তাত্ত্বিক শিবদাস ঘোষকে কমিউনিস্ট আন্দোলনের আন্তর্জাতিক অথরিটি হিসেবে স্বীকৃতি না দেয়ারসহ বেশ কিছু কারণ দেখিয়ে ২০১৩ সালে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ) থেকে মুবিনুল হায়দার চৌধুরী ও শুভ্রাংশু চক্রবর্ত্তীর নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী বের হয়ে নতুন দল বাসদ (মার্কসবাদী) গঠন করেন।[





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply