ভারত থেকে ১৭২ দিন পর দেশে ফিরলো সমুদ্রে হারিয়ে যাওয়া কিশোর

|

বরগুনা প্রতিনিধি:

শখের বশে নানার ট্রলারে চেপে সমুদ্রে মাছ শিকার করতে গিয়ে এব বি ইমরান নামের ট্রলারটি ঝড়ের কবলে পরলে ট্রলার থেকে ছিটকে পড়া বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার ১৪ বছরের কিশোর মো. ইমরান।

ঘটনার ১৭২ দিন পর আজ বিকেলে ভারত থেকে বাংলাদেশ সীমান্তে প্রবেশ করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী।

কিশোর ইমরান পাথরঘাটা উপজেলার চরদুয়ানী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ও মডেরখাল এলাকার মো. এছাহাক খানের ছেলে।

গত বছরের ২৬ আগস্ট মাছ ধরার ট্রলার থেকে ছিটকে পড়ে উত্তাল সমুদ্রে ভেসে যায় ইমরান, তখন পরনের লুঙ্গি ফুলিয়ে তিন দিন ভেসে থাকার পর ভারতীয় জেলেদের নজরে আসলে তারা তাকে উদ্ধার করে তুলে দেয় পশ্চিমবঙ্গের রায়দিঘি থানার পুলিশের হাতে। পরে
তাকে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করা হয় রায়দিঘি স্থানীয় হাসপাতালে। সেখান থেকে ভোলাহাট থানার নূর আলী মেমোরিয়াল সোসাইটি নামে একটি শিশু যত্ন ও শিশু সুরক্ষা কেন্দ্রে রাখা হয়। বাংলাদেশে ফেরার আগ পর্যন্ত ইমরান সেখানেই ছিল।

দীর্ঘ আইনি বেড়াজাল ও কূটনৈতিক যোগাযোগের পর আজ ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বিএসএফ বেনাপোল সীমান্তে বর্ডারগার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এর কাছে বিকাল ৪টা ২০ মিনিটে হস্তান্তর করে। সেখান থেকে ইমরানের বাবা ও স্বজনরা তাকে বেনাপোল থানার মাধ্যমে গ্রহণ করে।

উপজেলার চরদুয়ানী ইউনিয়নের মঠেরখাল গ্রামের ইসমাইলের মালিকানাধীন এফবি ইমরান নামে একটি ট্রলার ১২ জন মাঝিমাল্লা নিয়ে গত বছরের ২৩ আগস্টের সোমবার সমুদ্রে মাছ শিকার করতে যায়। পরদিন সমুদ্র থেকে মাছ শিকার করে ঘাটে ফিরে আসার পথে বলেশ্বর নদের মোহনায় হঠাৎ ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি। শরীরের ভারসাম্য হারিয়ে মুহূর্তের মধ্যেই ইমরান ট্রলার থেকে পড়ে যায়। অনেক খোঁজাখুঁজি করেও না পেয়ে আগস্ট মাসেই রাতে পাথরঘাটা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়।

বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরী বলেন, বরগুনার জেলা প্রশাসক, ট্রলার মালিক সমিতিসহ তার স্বজনরা তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য চেষ্টা করেছেন।

গোলাম মোস্তফা আরও বলেন ঝড়ের কবলে পরে এবং ট্রলারের ইঞ্জিন নষ্ট হয়ে অনেক জেলে ট্রলার সহ ভারতে প্রবেশ করে, সে সকল জেলেরা ভারতের বিভিন্ন কারাগারে রয়েছে তাদের কে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।

জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ ইমরানের বেঁচে থাকাকে অলৌকিক এবং এই দিনে দেশে ফেরা দুই প্রতিবেশী দেশের জনগণের ভালোবাসা বলে অভিহিত করেন।









Leave a reply