করোনাভাইরাস নিয়ে সারাবিশ্বে ‘স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা’ জারি

|

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে বিশ্বব্যাপী ‘স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা’ জারি করলো বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা-ডব্লিউএইচও। গেল কয়েকদিনে বিভিন্ন দেশে সংক্রমণ ছড়ানোয় বৃহস্পতিবার রাতে এ সিদ্ধান্ত জানায় সংস্থাটি।

এ ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনে শুক্রবার পর্যন্ত ২১৩ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। দেশটিতে নিশ্চিতভাবে আক্রান্তের সংখ্যা ৯ হাজার ৬৯২ জন। ডব্লিওএইচও বলছে, আরও ১৮ দেশের কমপক্ষে ১০০ মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। অবশ্য, চীনের বাইরে এখন পর্যন্ত কারো মৃত্যু ঘটেনি। এ মাসের মাঝামাঝি সময়ে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে প্রথম রহস্যজনক এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। উহানকে একপ্রকার অবরুদ্ধ রাখা হলেও, ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে মারাত্মক ছোঁয়াচে এই ভাইরাস।

ডব্লিউএইচও’র প্রধান টেড্রোস অ্যাডানম গ্যাব্রিয়েসুস বলেন, চীনে কি হচ্ছে সেটার চেয়ে বেশি জরুরি বিশ্বের অন্যান্য দেশে কি ঘটছে। উদ্বেগের বিষয় হল, দুর্বল স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দেশগুলোতে এ ভাইরাস দ্রুত ছড়িয়ে পড়তে পারে।

এ ভাইরাসে আক্রান্তদের নির্দিষ্ট চিকিৎসা বা প্রতিষেধক নেই। ডব্লিউএইচও বলছে, অনেক মানুষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হলেও আবার সেরে উঠতে পারেন। তবে শ্বাসতন্ত্রের মাধ্যমে বাহিত হয়ে মারাত্মক সংক্রমণ তৈরি করতে পারে। এর ফলে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে।

এদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে অবরুদ্ধ চীনা নগরী উহানে আটকে পড়া ৩৪১ জন বাংলাদেশিকে দেশে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে। আজ দুপুরে বাংলাদেশ বিমানের একটি ফ্লাইট তাদের আনতে চীনের উদ্দেশে রওনা হবে। এ ছাড়া চীনফেরত যাত্রীদের তালিকা তৈরির নির্দেশ দেয়া হয়েছে।









Leave a reply