নানান পদক্ষেপের পর গতি ফিরেছে দুই শেয়ার বাজারে

|

সরকারের নানান পদক্ষেপের পর গেলো সপ্তাহে গতি ফিরেছে দুই শেয়ার বাজারে। ডিএসই’র প্রধান সূচক প্রায় ৩৬৪ পয়েন্টের মতো বেড়েছে। এছাড়াও ৩২৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম বেড়ে লেনদেনের গতিও কিছুটা উর্ধ্বমূখী। একই ধারা বজায় ছিল চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সূচকেও।

প্রধান সূচক ডিএসই ব্রড ইনডেক্স প্রায় ৩৬৪ পয়েন্টের মত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৫১৩ পয়েন্টে। সেইসাথে বেড়েছে শরিয়াহ্ সূচক প্রায় ৯৫ পয়েন্টের মতো এবং ডিএসই-থার্টি বেড়েছে ১৩৬ পয়েন্টের মত ।

অন্যদিকে গেল সপ্তাহে মোট লেনদেনও বেড়েছে প্রায় ৭১ দশমিক ৫৬ শতাংশ। হাতবদল হয়েছে ২ হাজার ২শত ৬৫ কোটি টাকার শেয়ার। তার আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৩শ’ ২০ কোটি টাকার শেয়ার

তালিকাভুক্ত ৩৬০ টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৩২৮ টির, কমেছে ২৩ টির। আর অপরিবর্তিত ছিল ৭ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দর। লেনদেন হয়নি ২টি প্রতিষ্ঠানের।

এই সপ্তাহে লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে ছিল লাফার্জ হোলসিম। হাতবদল হয়েছে ১৩৩ কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে ছিল স্কয়ার ফার্মা এবং এসএস স্টিল।

প্রায় ৪১ ভাগ দাম বেড়ে দর বৃদ্ধির তালিকায় আছে ইনভেষ্টমেন্ট কর্পোরেশন বাংলাদেশ লিমিটেড। পরের অবস্থানে আছে সি পার্ল বীচ রির্সোট এবং বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কম্পানি।

প্রায় ১৫ ভাগ কমে দরপতনের তালিকায় শীর্ষে ছিলো এসএস স্টিল । পরের অবস্থানে আছে যথাক্রমে মোজাফফর হোসাইন স্পিনিং মিল এবং স্ট্যন্ডার্ড সিরামিক।

মূল সূচক সিএসপিআই ৯ দশমিক ০৭ পয়েন্টের মতো বেড়েছে। সপ্তাহজুড়েই মোট লেনদেন হয়েছে মোট ১৬৫ কোটি ৫৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে ।

লেনদেন হওয়া ২৯৮ টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দর বেড়েছে ২৬৫ টির। কমে গেছে ২৭ টির। আর অপরিবর্তিত ছিল ১২ টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দর।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে ছিল ডাচ বাংলা ব্যাংক। হাতবদল হয়েছে ৪৮ কোটি ৮৮ লাখ টাকার শেয়ার। দ্বিতীয় ও তৃতীয় অবস্থানে যথাক্রমে ছিল প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল ও ব্যাংক এশিয়া।

দরবৃদ্ধির তালিকায় প্রায় ৪৩ ভাগ বেড়ে শীর্ষে ছিল ইনভেস্টমেন্ট কর্প অফ বাংলাদেশ। পরের অবস্থানে আছে সি পার্ল বীচ রির্সোট এবং বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবেল কম্পানি।

অন্যদিকে প্রায় ১৫ ভাগ কমে, দরপতনের তালিকায় শীর্ষে এসএস স্টিল। এরপর আছে সোনারগাঁও টেক্সটাইল এবং স্ট্যন্ডার্ড সিরামিক।









Leave a reply