সীমান্তে ভারতীয় গোয়েন্দাদের দুঃশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে পাকিস্তানি ড্রোন

|

ভারতের পাঞ্জাব প্রদেশে একের পর এক পাকিস্তানি ড্রোন দুঃশ্চিন্তা বাড়াচ্ছে ভারতীয় গোয়েন্দা ও সীমান্তরক্ষী বাহিনীর। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা’র।

আনন্দবাজার জানায়, গত সাপ্তাহে বিস্ফোরক বোঝাই দুটি ড্রোন ভূপাতিত করার পর তা আরো দুঃশ্চিন্তায় ফেলে ভারতীয় গোয়েন্দাদের। প্রথমে ড্রোনের হানায় তারা ভেবেছিল সীমান্তে নজরদারি বাড়াতেই একের পর এক ড্রোন উড়াচ্ছে পাকিস্তান। কিন্তু বিস্ফোরক পাওয়ার পর তারা পাক ড্রোন নিয়ে নতুন সিদ্ধান্তে উপনীত হচ্ছে।

দেশটির গোয়েন্দারা জানায়, পাঞ্জাব প্রদেশে খালিস্তানপন্থী উগ্রগোষ্ঠীগুলোকে সহায়তা করার জন্যই মূলত ড্রোনের মাধ্যমে বিস্ফোরক পাঠাচ্ছে পাকিস্তান। তাদের দাবি, গত বছরের আগস্ট থেকে অক্টোবর পর্যন্ত প্রতি মাসে গড়ে ১০-১৫টি পাক ড্রোনের ভারতে প্রবেশের প্রমাণ মিলেছে।

ভারতীয় গোয়েন্দারা জানায়, পাকিস্তানি এসব ড্রোন ‘প্রি-ফেড’ প্রযুক্তির ফলে এরা নির্দিষ্ট তথ্যের অনেক উঁচু থেকেই বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানের ছবি তুলে নিরাপদে ফিরে যেতে সক্ষম। একইসাথে এগুলো নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অনেকটা দূরত্ব পার হয়ে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। এরফলে এগুলিকে সহজে চিহ্নিত করা যায় না।

ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানান, এ ধরনের ড্রোন নামানোর প্রযুক্তি ভারতের কাছে নেই। একমাত্র দূরপাল্লার স্নাইপার রাইফেল ছাড়া এগুলিকে নামানো অসম্ভব। সেইসাথে পাকিস্তানের সাথে প্রায় তিন হাজার কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত জুড়ে স্নাইপার মোতায়েনও কার্যত অসম্ভব। ফলে সীমান্তে এখন ড্রোন জ্যামার বসানোর কথা চিন্তা করছে সরকার।









Leave a reply