হ্যারি-মেগানের মূর্তি সরিয়ে ফেললো মাদাম তুসো জাদুঘর

|

রাজ পরিবার ত্যাগের ঘোষণা দেয়ার পর প্রিন্স হ্যারি ও তার স্ত্রী মেগানের মূর্তি সরিয়ে ফেলেছে লন্ডনের বিখ্যাত মোমের জাদুঘর মাদাম তুসো মিউজিয়াম। তবে, রাজ পরিবারের সদস্যদের থেকে তাদের মূর্তি পৃথক করা হলেও গুরুত্বপূর্ণ ও জনপ্রিয় ব্যক্তি হিসেবে সেগুলো সংরক্ষণ করা হবে। মিউজিয়ামের অন্য কোথাও মূর্তি দুটি বসানো হবে বলে জানিয়েছে মিউজিয়াম কর্তৃপক্ষ।

বুধবার নিজেদের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে প্রিন্স হ্যারি ও মেগান ঘোষণা করেন, এখন থেকে ‘সিনিয়র রয়্যালস’ এর খেতাব তারা আর ব্যবহার করবেন না। তবে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের বিভিন্ন কাজের সঙ্গে যুক্ত থাকবেন।

এসময়, ব্রিটেন এবং উত্তর আমেরিকা দুই জায়গাতেই ভাগ করে থাকবেন এবং রাজপরিবারের আর্থিক সুযোগসুবিধা ছেড়ে সাধারণ মানুষের মতো উপার্জনের চেষ্টা চালাবেন বলে জানান তারা।

এক বিবৃতিতে মেগান জানান, ব্রিটেন এবং উত্তর আমেরিকা দুই ভৌগোলিক অবস্থানে আমাদের ছেলে আর্চি বেড়ে উঠলে একই সঙ্গে ব্রিটিশ রাজপরিবারের ঐতিহ্য এবং সাধারণ মানুষের জীবনযাপন সম্পর্কে তার ধারণা জন্মাবে। এদিকে কোনোরকম পূর্ব আলোচনা ছাড়াই হ্যারি-মেগানের এই ঘোষণায় বিপাকে পড়েছে ব্রিটিশ রাজপরিবার। বাকিংহাম প্রাসাদের একটি সূত্র বলছে, এতে রানি হতাশ ও ব্যথিত হয়েছেন। বিকল্প উপায়ে সমাধানের চেষ্টা করছেন তিনি। তবে, এ প্রক্রিয়া ব্যর্থ হলে শাস্তির মুখেও পড়তে পারেন হ্যারি।

এদিকে এহেন সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরেই কানাডায় রেখে আসা ছেলে আর্চির কাছে চলে যান ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মর্কেল। যেকোনো সময় হ্যারিও যোগ দিতে পারেন তার সাথে।

অনেকের ধারণা, এক সময়ের জনপ্রিয় মার্কিন অভিনেত্রী মেগান আবারও বিনোদন জগতে ফিরে যাবেন। তবে বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, হ্যারি-মেগান দম্পতি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দিয়ে বই লিখে রোজগার করতে পারেন। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা ও তার স্ত্রী মিশেল এখন এমনটাই করছেন।









Leave a reply