হামলার শঙ্কায় ইসরায়েল, সব দূতাবাসে সতর্কতা জারি

|

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর কুদস্ বাহিনীর প্রধান মেজর জেনারেল কাসেম সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনায় মুখ খুলেছেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

গ্রিস সফর সংক্ষিপ্ত করে দেশে ফিরে বিমান থেকে নেমে সাংবাদিকদের কাছে কাশেম সোলাইমানির মৃত্যুতে ট্রাম্পের ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।

তিনি বলেন, ইসরায়েলের যেমন আত্মরক্ষার অধিকার আছে, ঠিক তেমনি যুক্তরাষ্ট্রেরও একই অধিকার আছে। কাশেম সোলাইমানি আমেরিকান নাগরিকসহ আরো অনেক নিরপরাধ মানুষের মৃত্যুর জন্য দায়ী। সে এমন আরো হামলার পরিকল্পনা করেছিলো।

সোলাইমানিকে হত্যার ঘটনায় খুশি হলেও ইরানের সম্ভাব্য হামলার ঝুঁকিতে থাকার বিষয়টি চিন্তায় ফেলেছে ইসরায়েলি নীতিনির্ধারকদের।

ইসরায়েলে একাধিক সংবাদমাধ্যমের বরাতে এনপিআর জানিয়েছে, ইসরায়েলিরা সোলাইমানির হত্যায় খুশি হয়েছে। তবে একই সাথে শঙ্কা দেখা দিয়েছে এই হত্যার পাল্টা জবাব হিসেবে ইরান ইসরায়েলি স্বার্থকে বেছে নেয় কিনা।

ইসায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদের সাবেক ডেপুটি হেড রাম বেন বারাক ইসরায়েল রেডিওকে বলেছেন, ‘এটা (সোলাইমানির হত্যাকাণ্ড) ঘটেছে ভালো খবর। এবং আমাদেরকে এই কাজ করতে হয়নি এটাও ভালো খবর। কিন্তু আমাদেরকে পরবর্তী পরিস্থিতির জন্য সতর্ক থাকতে হবে। ইরানিরা পাল্টা জবাব দিতে এক থেকে দুই মাস সময় নিতে পারে। কোনো সন্দেহ নেই তারা পাল্টা আঘাত করবে।”

এনপিআর জানিয়েছে, ইতোমধ্যে নিজেদের মধ্যে সতর্কতা জারি করেছে তেলআবিব। দুনিয়াজুড়ে থাকা দেশটির সব দূতাবাসে ইতোমধ্যে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সোলাইমানি হত্যার পর সম্ভাব্য হামলার আশঙ্কায় সীমান্ত সংলগ্ন একটি রিসোর্ট বন্ধ করে দিয়েছে ইসরায়েল।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply