মোস্তাফিজের জাদুকরী বোলিংয়ে টার্গেট নাগালে রাখলো রংপুর

|

দীর্ঘদিন পর জ্বলে উঠলেন মোস্তাফিজুর রহমান। দুরন্ত গতি, দুর্দান্ত স্লোয়ার-কাটার ও ভয়ংক বাউন্সারে সিলেট থান্ডার ব্যাটসম্যানদের নাচিয়ে ছাড়লেন তিনি।

সোমবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় সিলেট থান্ডার। স্কোরবোর্ডে কোনো রান না ওঠার আগেই আরাফাত সানির শিকার হন ইনফর্ম আন্দ্রে ফ্লেচার। এরপর মুকিদুল ইসলামের বলে দ্রুত ফেরেন বিধ্বংসী জনসন চার্লস।

সূচনাতেই দুই ওপেনারকে হারিয়ে চাপে পড়ে সিলেট। পরে অধিনায়ক মোসাদ্দেক হোসেনকে দলের হাল ধরেন মোহাম্মদ মিঠুন। ধীরে ধীরে এগিয়ে যান তারা। ক্রিজে সেট হয়ে চোখ রাঙাচ্ছিলেন এ জুটি। তবে সেটা ভালোভাবে নিতে পারেননি রংপুর রেঞ্জার্সের ফিল্ডাররা। মোসাদ্দেককে রানআউটে কেটে ফেরান নাঈম শেখ।

এরপর শেরফান রাদারফোর্ডকে নিয়ে খেলা ধরার চেষ্টা করেন মিঠুন। তবে তাকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি এ ক্যারিবিয়ান। লুইস গ্রেগরির বলে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরত আসেন তিনি। এতে ফের বিপর্যয়ে পড়ে সিলেট। খানিক পর মোহাম্মদ নবীর বলে সাজঘরে ফেরেন নাজমুল হোসেন মিলন।

সতীর্থরা একে একে যাওয়া-আসার মিছিলের মধ্যে বুক চিতিয়ে লড়েন মিঠুন। পথিমধ্যে লড়াকু ফিফটিও তুলে নেন তিনি। তবে ধ্বংসস্তূপে পড়ে একপর্যায়ে হার মানেন এ মিডলঅর্ডারও। মোস্তাফিজুর রহমানের ভয়ংকর বাউন্সারে সানির তালুবন্দি হয়ে ফেরেন তিনি। ফেরার আগে ৪৭ বলে ৪ চার ও ২ ছক্কায় ৬২ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলেন মিঠুন।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply