মানিকগঞ্জের ভাড়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়

|

প্রকল্পের টাকা আত্মসাত, বিধবা ভাতা ও সরকারি ঘর বিতরণে ঘুষ নেয়াসহ নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ ওঠেছে, মানিকগঞ্জের ভাড়ারিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে।

চেয়ারম্যান আব্দুল কাদেরের বিরুদ্ধে আরো অভিযোগ, সদস্যদের মতামতকে উপেক্ষা করে স্বেচ্ছাচারিতার মাধ্যমে তিনি পরিষদ চালাচ্ছেন। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১০ ইউপি সদস্য অনাস্থা এনে এরই মধ্যে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

সদর উপজেলার ভাড়ারিয়া ইউনিয়নের বরুনা গ্রাম। যাতায়াত ও পন্যপরিবহণে দুর্ভোগের শেষ নেই, এখানকার মানুষের। অথচ গেলো ১৬-১৭ অর্থ বছরে বরুনা ভাষানের বাড়ি হতে খাবাসপুর বলাই ঘোষের বাড়ি পর্যন্ত রাস্তা নির্মাণে বরাদ্দ ছিলো ১৭ লাখ টাকা। অভিযোগ উঠেছে, নাম মাত্র কাজ করে বরাদ্দের বেশিরভাগ টাকা আত্মসাত করেছেন ইউপি চেয়ারম্যান।

বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা আত্মসাত ছাড়াও, সরকারি ঘর বরাদ্দ, বয়স্ক ও বিধবা ভাতা গ্রহিতাদের কাছ থেকে ঘুষ নেয়াসহ নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ ভাড়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি আব্দুল কাদেরের বিরুদ্ধে। এরইমধ্যে সুনির্দিষ্ট ১৮টি অভিযোগ এনে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা এনেছে পরিষদের ১০ সদস্য।

অভিযোগের বিষয়ে কথা বলতে গেলে সব অস্বীকার করেন চেয়ারম্যান। এসময় ইউপি সদস্য ও জনগনের তোপের মুখে পড়েন তিনি।

মানিকগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসমাউল হুসনা লীজা জানান, এসব অভিযোগ তদন্ত করে, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া

চেয়ারম্যানের অপসারণের দাবিতে মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচিও পালন করেছেন ইউপি সদস্য ও ভুক্তভোগীরা।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply