প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশু ভর্তির হার শতভাগ ছুঁয়েছে

|

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিশু ভর্তির হার শতভাগ ছুঁয়েছে। গেল কয়েক বছরে শিক্ষার এমন সাফল্যের বিপরীতে ঝড়ে পড়ার হার পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। প্রাথমিকে ২০ ভাগসহ মাধ্যমিকের শেষের আগেই ৫৭ ভাগ শিক্ষার্থী ঝড়ে। আর সাথে রোগ বালাইসহ স্বাস্থ্যখাতে হু হু করে খরচ বেড়ে যাওয়া নাভিশ্বাস উঠেছে সাধারণ মানুষের।

গেল কয়েক বছরে বাজেটের আকার তিনগুণ হলেও শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে বরাদ্দ বেড়েছে নাম মাত্র। দেশকে এগিয়ে নিতে গুণগত শিক্ষা ও সবার জন্য সুস্বাস্থ্য নিশ্চিতে নীতিকাঠামো ঢেলে সাজানোর তাগিদ গবেষকদের।

পড়াশুনায় আগ্রহী করতে বছর সোয়া চার কোটি প্রাথমিক স্কুলের শিশুদের বিনামূল্যে বই দিচ্ছে সরকার। নতুন বই পেয়ে গেল কয়েক বছরে প্রাথমিক স্কুলে শতভাগ শিশু ভর্তি হয়েছে। যা শিক্ষার ক্ষেত্রে বড় অর্জন, বলছে সরকার।

নতুন বই নিয়ে স্কুলে যাতায়াত শুরু হলেও শিক্ষার্থীরা কতটা মান সম্মত শিক্ষা পাচ্ছে তা নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন। মানের পাশাপাশি মরার উপর খাড়ার ঘা হিসেবে দেখা দিয়েছে শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ার সংখ্যা।

গবেষণা বলছে, স্কুলে ভর্তি হওয়া ১’শ শিশুর মধ্যে ২০ জনই ঝড়ে পড়ে ৫ম শ্রেণী পাশের আগে। যারা পাশ করে মাধ্যমিকে উঠলো তাদের ৩৭ ভাগ ঝড়ে পরে এসএসসি পাশের আগে। নতুন বই এর গন্ধ শুকে ভর্তি হওয়া ১০০ জনের মধ্যে কলেজে উঠত পারে ৪৩ জন। শেষ পর্যন্ত উচ্চ শিক্ষায় যেতে পারে ৪ ভাগেরও কম।

অভাব ও দারিদ্রের কারণে শিক্ষাবঞ্চিত কোটি কোটি শিশুই হয়ে উঠছে তরুণ-যুবক। তাপমাত্রা পরিবর্তনজনিত রোগবালাই বৃদ্ধি, ভেজাল ও দুষিত খাবারের কারণে পুষ্টিহীনতা বাড়ছে। আক্রান্ত শিশুদের চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে দিয়ে দরিদ্র থেকে হত দরিদ্রে পরিণত হচ্ছে গ্রামের সাধারণ মানুষ।

শিক্ষা ও স্বাস্থ্যের মতো মৌলিক অধিকার নিশ্চিতে পিছিয়ে আড়াই তিন কোটি পরিবারের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা চালুর তাগিদও দেন তারা।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply