বেতন-ভাতা কমানোর প্রতিবাদে বেসিক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিক্ষোভ

|

বেতন-ভাতা কমানোর প্রতিবাদে দিনভর বিক্ষোভ করেছে বেসিক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। প্রায় ১১ ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখে চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ পর্ষদ সদস্যদের। আন্দোলনকারীদের সাথে আলোচনায় বসলেও কোন সমাধান ছাড়াই শেষ হয় তা। পরে পুলিশের সহায়তায় ব্যাংক থেকে বেরিয়ে যানা তারা।

বেসিক ব্যাংকের নিজস্ব কাঠামো বাতিল করে প্রজ্ঞাপন জারির প্রতিবাদে দ্বিতীয় দফায় রোববার বিক্ষোভ করে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ারও ঘোষণা দেন তারা। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে থাকায় পুলিশ এসে হাজির হয় বেসিক ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে। এতে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন কর্মকর্তারা। বিষয়টি নিয়ে আলোচনার জন্য আন্দোলনকারীদের ডাকা হলেও কোন সমাধান ছাড়াই শেষ হয় তা। প্রজ্ঞাপন প্রত্যাহার বা স্থগিত রাখার বিষয়ে কিছুই বলা হয়নি বৈঠকে।

অবরুদ্ধ থাকার পর পুলিশের সহায়তায় ব্যাংক থেকে বেরিয়ে যান পরিচালনা পর্ষদের সদস্যরা। আলোচনা এবং প্রজ্ঞাপন বিষয়ে চেয়ারম্যান এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুখ খোলেনি।

পুলিশ জানায় অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতেই সহায়তায় এগিয়ে আসেন তারা।

ব্যাংক ক্লোজিংয়ের কারণে সোমবার আন্দোলন স্থগিত থাকবে বলে জানান তারা।

রাষ্ট্রায়াত্ত্ব ব্যাংক হলেও স্বতন্ত্র বেতন-ভাতা ভোগ করছিলেন বেসিক ব্যাংকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এটি বাতিল হওয়ায় ৪০ থেকে ৬০ শতাংশ বেতন কমে যাবে বলে জানান তারা।





সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply