শেরপুরের জমি নিয়ে সংঘর্ষ, নিহত ১

|

শেরপুর প্রতিনিধি:

জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে শেরপুরের শ্রীবরদীতে সংঘর্ষে দেলোয়ার হোসেন দেলু (৩৫) নামে একজন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে কমপক্ষে ১২ জন। এর মধ্যে আরও তিনজনকে আশংকাজনক অবস্থায় জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে।

শনিবার দুপুরে উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের হরিণাকান্দা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, হরিণাকান্দা গ্রামে এক খণ্ড জমি নিয়ে মৃত আলাউদ্দিনের ছেলে ইব্রাহিম খলিল বাচ্চু ও শাহজাহান গংদের সাথে প্রতিবেশী মৃত হামিদুর রহমানের ছেলে দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলুর বিরোধ চলছিল।

শনিবার প্রতিবেশী লিটনের বাড়ির পাশে রাস্তায় দেলোয়ার হোসেনের সাথে শাহজাহানের স্ত্রী লাভলী বেগমের কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় ইব্রাহিম খলিল ওরফে বাচ্চু সেখানে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি ও সংঘর্ষ বাঁধে। এতে লাঠি ও দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে উভয় পক্ষের ১২জন আহত হয়।

এ সংবাদ শোনে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে আহতদের উপজেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতরা হলেন, মৃত হামিদুর রহমানের ছেলে দেলোয়ার হোসেন ওরফে দেলু (৩৫), বিপুল (২২), বাবু (৩০) স্ত্রী শিরিনা বেগম (৬০), হারুন মিয়ার স্ত্রী শিমু (৩৫), বাবু মিয়ার স্ত্রী তাহমিনা খাতুন (২২), মৃত আজিজুল হকের ছেলে আজমল মিয়া (৫২), আমিরুল ইসলাম (৩৬), মৃত আলাউদ্দিনের ছেলে ইব্রাহিম খলিল ওরফে বাচ্চু (৫৫) ও গোলাপ হোসেনের স্ত্রী শামছুন নাহার (৫৫)সহ ১২ জন।

উপজেলা সদর হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত আরএমও ডা.তানভির আহমেদ বলেন, আহতদের মধ্যে আশংকাজনক অবস্থায় দেলোয়ার হোসেন দেলু, আজমল হোসেন, বাবু মিয়া ও বিপুল মিয়াকে জেলা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। এ ঘটনায় দেলোয়ার হোসেন দিলু বিকাল ৫ টায় জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। অপর আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে জিজ্ঞাসাবাদের জন্যে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। আটককৃতরা হলো এনামুল হক, আরিফুল হক, সেতু ও মিরা ইয়াছমিন।

থানা অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার বলেন, এ নিয়ে থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply