বিশ্বে কমছে পুরুষ ধূমপায়ীর সংখ্যা

|

বিশ্বব্যাপী কমেছে তামাক ও তামাকজাত পণ্য ব্যবহারের পরিমাণ। প্রথমবারের মতো কমেছে পুরুষ ধূমপায়ীর সংখ্যা। জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বৃহস্পতিবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১৮ সালে বিশ্বজুড়ে ধূমপায়ীর সংখ্যা ছিল ১৩০ কোটি। যা ২০০০ সালের তুলনায় ছয় কোটি কম। ধূমপানের প্রবণতার কমার হার সামান্য হলেও, এ ধারা বজায় রাখতে বিভিন্ন দেশের সাথে সমন্বিতভাবে কাজ করে যাওয়ার কথা জানিয়েছে জাতিসংঘের স্বাস্থ্য বিষয়ক সংস্থাটি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডিরেক্টর ড. রুডিগার ক্রেচ বলেন, “গেল ২০ বছরে নারী ধূমপায়ীর সংখ্যা কমে এলেও পুরুষ ধূমপায়ীর সংখ্যা কখনোই কমতে দেখিনি। তবে এখনও আশাবাদী হওয়ার কিছু নেই। এ ধারা বজায় রাখতে হলে আরও অনেক কার্যকরি পদক্ষেপ নিতে হবে আমাদের। ধূমপানের বিজ্ঞাপন প্রচার পুরোপুরি বন্ধ, কর বৃদ্ধি, উন্মুক্ত স্থানে ধূমপান বন্ধ করতে হবে। আর এসবের জন্য সরকারের ভূমিকাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।”

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, তামাক থেকে নানারকম স্বাস্থ্য জটিলতায় প্রতি বছর সারা বিশ্বে গড়ে মৃত্যু হয় ৮২ লাখ মানুষের। এদের মধ্যে ৭০ লাখ সরাসরি ধূমপায়ী হলেও, বাকি ১২ লাখ মানুষ ধূমপায়ীদের ধোঁয়ার সংস্পর্শে যাওয়ার ফলে নানা রোগে আক্রান্ত হন। ফুসফুস-মুখ ও গলায়সহ নানারকম ক্যান্সারে, হৃদরোগ এবং শ্বাসপ্রশ্বাসজনিত রোগ বিস্তারে ভূমিকা রয়েছে ধূমপানের।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply