৫ হাজার বছর আগেও ছিল চুইংগাম!

|

প্রস্তর যুগেও কি চুইংগাম চিবাত মানুষ? প্রশ্নটি অবান্তর মনে হলেও সম্প্রতি মিলেছে এর উত্তর। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ৫ হাজার বছর আগেকার ওই যুগের চুইংগাম আবিষ্কৃত হয়েছে।

সম্প্রতি স্ক্যান্ডেনেভিয়ান দেশ ডেনমার্কে খননকার্য চালিয়ে প্রস্তর যুগের বেশ কিছু জিনিস পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে রয়েছে বার্চ গাছের জমে যাওয়া রসের এক খণ্ড, যা চুইংগামের মতো ব্যবহার করেছেন এক তরুণী।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, পরীক্ষা করে ওই গামের ভেতর থেকে তরুণীটির সম্পূর্ণ জিন কাঠামো পাওয়া গেছে। এই প্রথম হাড় ছাড়া অন্য কোনো বস্তু থেকে আদিম মানুষের সম্পূর্ণ জিন কাঠামো মিলল।

জানা যাচ্ছে, ওই তরুণীর গায়ের রং ও চুল ছিল কালো, চোখের মণি দুটি ছিল নীল। সম্ভবত তিনি ছিলেন শিকারি। তার দৈহিক গঠন স্ক্যান্ডেনেভিয়া নয়, ইউরোপের মূল ভূখণ্ডের মানুষের সঙ্গে মেলে।

গবেষকরা জানান, আঠা চিবানোর আগে বাদাম ও হাঁসের মাংস খেয়েছিলেন তরুণী। দাঁত পরিষ্কার বা ক্ষুধা কমানোর জন্য আঠা চিবাচ্ছিলেন। বিজ্ঞানীরা বলছেন, ওই নারীর মুখে গ্ল্যান্ডের অসুখ সৃষ্টি করে এমন ব্যাকটেরিয়া ছিল।

কিন্তু তার ওই অসুখ হওয়ার তথ্য মেলেনি। এমনও হতে পারে ভাইরাসটি ওই যুগে কার্যকরী হয়নি। বিজ্ঞানীদের দাবি, ওই ভাইরাসের বিবর্তন নিয়েও গবেষণার সুযোগ তৈরি হয়েছে। ডয়চে ভেলে।


সম্পর্কিত আরও পড়ুন





Leave a reply